২৭ শর্তে বিএনপিকে ঢাকা ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশনে সমাবেশ করার অনুমতি

0

জিসাফো ডেস্কঃ একেবারে শেষ মূহুর্তে বিএনপিকে ঢাকার ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশনে ২৭ শর্তে সমাবেশ করার অনুমতি দিয়েছে ঢাকা মহানগর পুলিশ। মঙ্গলবার দুপুরে ঢাকা মহানগর পুলিশের উপ কমিশনার মাসুদুর রহমান সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

পরিবর্তন ডটকমকে তিনি জানান, বিএনপিকে ২৭ টি শর্তে মঙ্গলবার বিকালে ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশনে সমাবেশ করার অনুমতি দেওয়া হয়েছে। তবে বিএনপি অনুমতির বিষয়টি অস্বীকার করে জানায়, সমাবেশের জন্য ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন ব্যবহারের অনুমতি তারা চায়নি। ১৩ নভেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করতে চায় বিএনপি।

বিএনপি সূত্রে জানা যায়, বিপ্লব ও সংহতি দিবস’ এর অংশ হিসেবে প্রথমে ৭ ও পরে ৮ নভেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার অনুমতি চেয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের কাছে আবেদন করেছিল বিএনপি। কিন্তু পুলিশের পক্ষ থেকে জানানো হয়, সোহরাওয়ার্দীতে সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হবে না। এরপর ৮ নভেম্বর নয়া পল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশের অনুমতি চেয়ে ফের আবেদন করে বিএনপি।

পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘তারা কেবল সমাবেশের অনুমতি দিচ্ছে, স্থান ব্যবহারের নয়। স্থান ব্যবহারের জন্য ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশন থেকে অনুমতি নিতে হবে। এছাড়া সমাবেশের কার্যক্রম ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশনে সীমাবদ্ধ রেখে বিকাল সাড়ে ৪টার মধ্যে শেষ করতে হবে।’

পুলিশের এই বক্তব্য প্রত্যাখ্যান করে বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেন, ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে অন্য কোনো স্থানে বিএনপির সমাবেশ করার অবকাশ নেই।’8d98d8483e01ef783c3c6a58988aa153-58219359d7d3cএদিকে সোমবার বিএনপির পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল, এক দিন পিছিয়ে ৯ নভেম্বর অনুমতি পেলেও তারা রাজি। তারপরও পুলিশের কাছ থেকে কোনো খবর না আসায় মঙ্গলবার দুপুরে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ১৩ নভেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি’ দিবসের কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, ‘আমাদের সমাবেশ করতে না দিয়ে সরকার সংবিধান লঙ্ঘন করছে। আমরা আবারও বলতে চাই, আগামী ১৩ নভেম্বর আমাদেরকে সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশ করার অনুমতি দিন। আজ আমরা নতুন করে চিঠি পাঠাব।’

এ প্রসঙ্গে রিজভী বলেন, ‘সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে ১৩ নভেম্বরের সমাবেশের ব্যাপারে আইনি প্রক্রিয়া, অর্থাৎ পুলিশকে চিঠি দেওয়া, গণপূর্ত অধিদপ্তরকে চিঠি দেওয়া- এ কাজগুলো আমরা শুরু করেছি। চিঠিগুলো নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।’