২০৫০ সালের মধ্যে বাংলাদেশের প্রায় আড়াই কোটি মানুষের জীবন হুমকির সম্মুখীন হবে

0

জিসাফো ডেস্কঃ দিন দিন সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বেড়ে যাওয়ায় ২০৫০ সালের মধ্যে বাংলাদেশের প্রায় আড়াই কোটি মানুষের জীবন হুমকির মুখে পড়বে বলে উঠে এসেছে জাতিসংঘের পরিবেশ বিষয়ক একটি প্রতিবেদনে। গ্লোবাল এনভায়োরনমেন্টাল আউটলুক (জিএফও) প্রতিবেনদটি প্রস্তুত করেছে।

হিমালয়ের বরফ গলা পানি বৃদ্ধির ফলে সমুদ্রস্তরের উচ্চতা বৃদ্ধিই ওই ঝুঁকির প্রধান কারণ হবে বলে জানিয়েছেন গবেষকরা। প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চল এবং দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব চরম আকার ধারণ করবে বলে গবেষণায় উঠে আসে। দ্রুত অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও ক্রমবর্ধমান নগরায়নের ফলে সমুদ্র উপকূলবর্তী অঞ্চলসমূহে বন্যার প্রবণতা বেড়ে যাবে বলেও প্রতিবেদনে জানানো হয়।

ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর মধ্যে ভারত সবার শীর্ষে। জলবায়ুর পরিবর্তনের এই বিরূপ প্রভাবে ভারতে প্রায় চার কোটি মানুষের জীবন ক্ষতির মুখে পড়বে। চীনে দুই কোটি এবং ফিলিপাইনের প্রায় দেড় কোটি মানুষ ওই ঝুঁকির মুখে পড়বে। উপকূলীয় এলাকায় যেভাবে জনসংখ্যা বেড়ে চলেছে তাতে ২০৫০ সালের মধ্যে বিশ্বের সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ ১০টি দেশের মধ্যে সাতটি দেশই এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলে।

প্রতিবেদনে উপকূলবর্তী শহর হিসেবে ভারতের মুম্বাই ও কলকাতা, বাংলাদেশের ঢাকা, চীনের গুয়াংঝিও ও সাংহাই, মিয়ানমারের ইয়াংগুন, থাইল্যান্ডের ব্যাংকক এবং ভিয়েতনামের হো চি মিন সিটি’র নাম উল্লেখ রয়েছে। ২০৭০ সালের মধ্যে উপকূল ছাপিয়ে যে এলাকাগুলি ডুবে যেতে পারে সেই তালিকায় রয়েছে ঢাকার নামও।