১৯৭১ সালের ন্যায় ভারত সরকার এখনো বাংলাদেশ থেকে লুটপাট করে নিচ্ছে

0

জিসাফো ডেস্কঃ ১৯৭১ সালের ন্যায় ভারত সরকার এখনো বাংলাদেশ থেকে লুটপাট করে নিচ্ছে অভিযোগ করে গণস্বাস্থ্য বোর্ডের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেছেন, ১৯৭১ সালে ৪ ডিসেম্বর আমি যশোরে ছিলাম। ওই সময় ভারতের বাহিনী যশোর ক্যান্টনমেন্ট লুটপাট করছে। সেই লুটপাটের ধারাবাহিকতা এখনো অব্যাহত রয়েছে।’

জাতীয় প্রেস ক্লাবে রোববার দুপুরে বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির ৯ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ অভিযোগ করেন।

ভারতের প্রতিরক্ষামন্ত্রী মনোহর পার্রীকারের ‘বাংলাদেশকে জয় এনে দিয়েছি আমরা’ এমন কথার সমালোচনা করে জাফরুল্লাহ চৌধুরী বলেন, ‘আজ তারা (ভারত) বড়াই করে বলছে, বাংলাদেশের স্বাধীনতা তারা এনে দিয়েছে। লজ্জা-সরম থাকলে তিনি এ ধরনের কথা বলতেন না। উনাদের ধর্মেতো আবার এগুলো যায় না।’

রোহিঙ্গা ইস্যুতে সরকারকে আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘মানবতা ও রাজনৈতিক কারণে রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে আশ্রয় দেওয়া উচিত। বাংলাদেশের সমস্ত সীমান্ত খুলে দিন ও তাদের জন্য সীমানা নির্ধারণ করে দিন। যাতে সবার সঙ্গে মিশে না যায়।’

সভায় বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী অভিযোগ করে বলেন, ‘ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকার অশুভ ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন করতে দেশকে অনিবার্য গৃহযুদ্ধের দিকে ঠেলে দিচ্ছেন।’

তিনি বলেন, ‘ভুটান কিংবা সিকিম নয়, এই দেশ বাংলাদেশ। তাই প্রধানমন্ত্রী শত চেষ্টা করেও ১৬ কোটি মানুষকে অন্যায়ভাবে দাবিয়ে রাখতে পারবে না। এমনকি অনুগত পুলিশ ও র‌্যাব দিয়েও গণতন্ত্রকামী মানুষের আন্দোলন দমন করা যাবে না। জনগণ তাদের অধিকার প্রতিষ্ঠা করবেই।’

গত শনিবার গণভবনে প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলনের সমালোচনা করে রিজভী বলেন, ‘আপনি দেশের অভিভাবক। কিন্তু আপনার মুখে দেশের বিরোধীদলের প্রধানের বিরুদ্ধে এমন অশ্লীল অশ্রাব্য শুনে দেশবাসী বিস্মিত হয়েছে। ফলে দেশে গণতন্ত্র দূরে থাক কোনো ভদ্র লোক এদেশে বসবাস করাটা মুশকিল হয়ে যাবে। আপনার অধীনে কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু হয়নি, সুষ্ঠু হবে না।’

কল্যাণ পার্টির সভাপতি মেজর জেনারেল অব. সৈয়দ মুহাম্মদ ইব্রাহিম, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, বিএনপির নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোট নেতা খন্দকার গোলাম মোর্ত্তুজা, জেবেল রহমান গানি, এম এম আমিনুর রহমানসহ দলীয় নেতাকর্মীরা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।