হুইল চেয়ারে নয় গণতন্ত্রের মা হাটলেন নিজ পায়ে !

0

গাড়ি থেকে নামার পর নেত্রীর জন্য হুইল চেয়ার আনা হয়!কিন্তু তিনি হুইল চেয়ারে বসে হাসপাতালে প্রবেশ না করে পায়ে হেটেই গেলেন ডাক্তারের কাছ অবধী”ফিরলেন ও পায়ে হেটেই!

 

মেসেজ ক্লিয়ার…তোদের মত চেয়ারে বসে তীব্র নিন্দা জানানো আর প্রেস ব্রিফিং করা নেতা গুলোর চাইতে আমাদের জননী এখনো অধিক শাক্তিমান”

 

তোদের লজ্জা হবে না এটা আমাদের জানা আছে…..!

 

কথা হলো’ ওনার শারীরিক সুস্থতার জন্য প্রয়োজন ছিল ওনাকে কিছু দিন হাসপাতালে রেখে পর্যাপ্ত স্বেবা যত্নের” কারাগার থেকে মুক্ত করার হিম্মত রাখতে না পারি অন্তত এই টুকুন করার জন্য স্বৈরাচার কে বাধ্য করার সক্ষমতা ও কি আমাদের নেই?

 

বাতাসে ভেসে বেড়াচ্ছে’ একটা পক্ষ পুরোপুরি তৈরী দেশ নেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার চিকিৎসা করানোর নামে হাছিনার সঙ্গে আতাত করে ওনাকে বিদেশে পাঠানোর ব্যাপারে ”

মোটেও ভুল বলছিনা” যে বা যারাই এটাতে জড়িত বা যারাই এই পরিকল্পনা মোতাবেক এগুচ্ছিলেন’ আমার নেত্রী আমার মা আজ তোদের সেই পরিকল্পনা ভেস্তে দিলেন!

 

পায়ে হেটে হাসপাতালে প্রবেশ করে তিনি তার সন্তান দের বুঝিয়ে দিলেন…হতাশ হইও না মা এখনো দাঁড়িয়ে  আছি😰

 

যে কথাটি বলেছিলাম’ একটা গ্রুপ/একটা পক্ষ/একটা সিন্ডিকেট… হ্যা এটা খুব নির্ভর যোগ্য স্থান থেকেই জেনেছি”ওরা বেশ সক্রিয়!

 

একজন সাংবাদিক আজ আমাদের জননীকে প্রশ্ন করেছিলেন…ম্যাডাম কেমন আছেন?তিনি কোন উত্তর না দিয়ে কেবল একটা মুচকি হাসি দিয়ে চলতে শুরু করলেন!

 

আজ তিনি এভাবে অনেক কিছু বুঝিয়ে দিলেন’ বুঝিয়ে দিলেন ওরা যা চাচ্ছে তার কোনটাই সফল হবে না যতক্ষণ আমি জীবিত আছি’ আমার তৃনমূল সন্তান রা জাগ্রত থাকবে!

 

আজ তিনি আবারো প্রমাণ করলেন’ সি ইজ মাদার অফ ডেমোক্রেসি এন্ড দ্যা আয়রণ লেডি অফ বাংলাদেশ!

 

কিচ্ছু বুঝি না” শুধু কথা একটাই আজ থেকে নতুন কৌশলে আবারো রাজপথ”মিশন একটাই মা কে মুক্ত করতেই হবে!!