হজ্ব ইস্যু নিয়ে ইরানী প্রতিনিধীদল সৌদী আরবে

0

জিসাফো ডেস্কঃ চলতি বছর সৌদি আরবে শিয়া ধর্মীয় নেতা নিমরের মৃত্যুদণ্ড কার্যকরকে কেন্দ্র করে তেহরানের সৌদি দূতাবাসে আগুন দেয় বিক্ষুব্ধ ইরানিরা। এরপর থেকেই দুই দেশের কূটনৈতিক সম্পর্ক স্থগিত হয়। আর সেই সম্পর্ক স্বাভাবিক না হলে এ বছর হজ্বে যেতে পারবে না ইরানি হাজিরা।

দুই দেশের কুটনৈতিক এই বিরোধের মধ্যেই ইরানের একটি প্রতিনিধি দল মঙ্গলবার সৌদি আরবে আসন্ন হজ মৌসুমকে ঘিরে আলোচনার জন্য সফরে গেছেন।

ইরানের হজ্ব বিষয়ক সংস্থার প্রধান সাইদ ওহাদি বলেন ‘সৌদি আরবের হজ্ব বিষয়ক মন্ত্রীর প্রস্তাবে আমাদের ছয় সদস্যের এক প্রতিনিধি দল এ বিষয়ক আলোচনার জন্য এদিন দুপুরে রওনা দেন’। বুধবার বৈঠকে বসবেন তারা।

গত ১২ মে ইরানের সংস্কৃতি মন্ত্রী আলি জান্নাতি জানান যে, এ বছর ইরানি নাগরিকদের হজ্ব করতে যাওয়ার বিষয়টি এখনো চূড়ান্ত হয়নি। এ মন্ত্রণালয়ের অধীনেই ইরানের হজ্ব বিষয়ক কর্মকান্ড সম্পন্ন করা হয়। আলি জান্নাতি রিয়াদের বিরুদ্ধে নাশকতার অভিযোগও তোলেন। অবশ্য এ অভিযোগ প্রত্যাখান করে ইরানি নাগরিকদের হজ্ব করতে আসায় কোনো আপত্তি নেই বলে জানানো হয় সৌদি আরবের পক্ষ থেকে।

এর আগে এ বিষয়ে গত মাসে এক দফা ব্যর্থ আলোচনা করে দুই দেশ। গত জানুয়ারিতে দুই দেশের মধ্যকার উত্তেজনা শুরুর পর এটিই ছিল যেকোনো বিষয়ে প্রথম আলোচনা।

প্রথমে সৌদি আরবের প্রধান শিয়া নেতা শেখ নিমরের শিরচ্ছেদকে কেন্দ্র করে সম্পর্কের অবনতি শুরু হয় এবং ইরানের সৌদি দূতাবাসে আগুন লাগানোর ঘটনাকে কেন্দ্র করে তেহরানের সঙ্গে কুটনৈতিক সম্পর্ক ছিন্ন করে রিয়াদ। এছাড়া হজে নিরাপত্তাও একটি বড় ইস্যু। গত মৌসুমে হজের সময় এক দুর্ঘটনায় ২ হাজার ৩০০ বিদেশি হাজ্বি প্রাণ হারান, যার মধ্যে ইরানী ছিলেন ৪৬৪ জন।