সিরিয়ায় রুশ হামলার মধ্যে আইএসের নতুন শহর দখল

0

ঢাকা: রোববার সিরিয়ার পশ্চিমাঞ্চলীয় হোমস প্রদেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ শহর দখল করে নিয়েছে জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটের(আইএস) যোদ্ধারা। তারা এমন এক সময়ে শহরটি নিয়ন্ত্রণে নিল যখন দেশটিতে চার বছর ধরে চলা গৃহযুদ্ধের অবসানে ফের কূটনৈতিক তৎপরতা শুরু করেছে যুক্তরাষ্ট্র ও রাশিয়া।

যুক্তরাজ্যরভিত্তিক মানবাধিকার সংগঠন সিরিয়ান অবজারভেটরি ফর হিউমেন রাইটস জানিয়েছে, রোববার সরকারি সেনাদের কাছ থেকে হোমস প্রদেশের মাহিন শহরটি দখল করে নিয়েছে আইএস যোদ্ধারা। তারা এখন সিরিয়ার উত্তর পশ্চিমাঞ্চলীয় খ্রিস্টান অধ্যুষিত সাদাদ শহরের দিকে অভিযান শুরু করেছে।

সাদাদে আসিরীয় খ্রিস্টান সম্প্রদায়ের বাস যারা এখনো প্রাচীন আরামায়িক ভাষায় কথা বলে। দামেস্ক থেকে মাত্র ২৫ কিলোমিটার পূর্বে মাহিন শহরটির অবস্থান। সিরিয়া সরকারের একাধিক সামরিক স্থাপনা এবং অস্ত্র ভাণ্ডারের জন্য এটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে বিবেচিত হয়ে থাকে। এর আগে সরকারি সেনাদের সঙ্গে ব্যাপক সংঘর্ষের পর শহরটি দখল নিয়েছিল আল কায়দা যোদ্ধারা। ২০১৩ সালে সিরীয় বাহিনী এটি পুনর্দখল করতে সমর্থ হয়।

মাহিন দখলের পর আইএসের সাদাদ শহরের দিকে যাত্রা সিরিয়ার মধ্যাঞ্চলে তাদের আগ্রাসী তৎপরতাই ইঙ্গিত দেয়। এতদিন পর্যন্ত তারা কেবল সিরিয়ার উত্তর ও পূর্বাঞ্চলেই শক্তিশালী ছিল। গত মে মাসে তারা হোমসে নিজেদের কর্তৃত্ব প্রতিষ্ঠার পর প্রাচীন নগরী পালমিরা এবং পশ্চিমের আরো একটি গ্রাম দখলে নেয়।

রুশ বিমান হামলার মধ্যেও জিহাদিদের এই সামরিক অগ্রগতি বিশেষ তাৎপূর্যপূর্ণ বলেই মনে হয়। গত ৩০ সেপ্টেম্বর থেকে সিরিয়ায় জঙ্গি গোষ্ঠীগুলোর বিরুদ্ধে বিমান হামলা চালিয়ে যাচ্ছে মস্কো।

এদিকে গত শুক্রবার সিরিয়ার গৃহযুদ্ধ সমাধানে ভিয়েনায় এক বৈঠকে মিলিত হয়েছিলেন যুক্তরাষ্ট্র, রাশিয়া, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, জার্মানি, ইরান, মিসর ও লেবাননের পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা। তারা এ নিয়ে পরবর্তীতে আরো আলোচনায় মিলিত হওয়ারও বিষয়েও সম্মত হয়েছেন।