সালাম দেয়ার অপরাধে এক ছাত্রকে ছাত্রলীগকর্মীর পিটুনি

0

ইমরান হোসেন জনী,পাবনাঃ শ্রেণিকক্ষে ঢুকে সবার সামনে এক ছাত্রকে রড দিয়ে পিটিয়েছেন ছাত্রলীগের কর্মীরা। হামলার পর চলে যাওয়ার সময় আরো সাত-আটজন ছাত্রকে রড দিয়ে পিটিয়েছেন তাঁরা।

আজ শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পাবনা বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (পাবিপ্রবি) বাংলা বিভাগে এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় সাধারণ ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে উত্তেজনা ও ক্ষোভ বিরাজ করছে।

গুরুতর অবস্থায় ওই ছাত্রকে পাবনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে এখনো কোনো মামলা হয়নি।

পাবিপ্রবি সূত্র জানায়, আজ ব্যবসায় প্রশাসন বিভাগে সেশন ফি না দিয়ে পরীক্ষা দিতে যান মুশফিক মোর্শেদ মুকিম ও আল মুহাইমিন সাগর নামের দুই ছাত্রলীগকর্মী। এ সময় বিভাগের সহকারী অধ্যাপক হাসিবুর রহমান তাঁদের পরীক্ষা হল থেকে বের করে দেন। এরপর মুকিম, নাজমুল ও সাগরসহ সাত-আটজন ছাত্রলীগ কর্মী বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বাংলা বিভাগে যান। এ সময় তৃতীয় বর্ষের ছাত্র রকিব হাসান বিপ্লব তাঁদের দেখে ‘আসসালামু আলাইকুম ভাই’ বলার সঙ্গে সঙ্গে মুকিম, সাগর, নাজমুলসহ ও অন্যরা তাঁকে ক্লাসের মধ্যেই রড দিয়ে পেটাতে থাকেন। একপর্যায়ে রকিব হাসান মেঝেতে পড়ে গেলে মুকিম চাপাতি বের করে তাঁকে কোপাতে উদ্যত হন। এ সময় রকিবের বন্ধু তারিকুল ও জিপু তাঁকে ঝাপটে ধরলে তিনি রক্ষা পান। এরপর শিক্ষকরা এলে মুকিম, নাজমুল ও সাগরসহ অন্যরা দৌড়ে পালিয়ে যান। সিঁড়ি দিয়ে নামার সময় তাঁরা আরো সাত-আটজনকে সাধারণ শিক্ষার্থীকে রড দিয়ে পিটিয়ে জখম করেন।

আহত রকিবের বাড়ি পাবনার চাটমোহর উপজেলায়। আর মুকিমের বাড়ি কুমিল্লা জেলায়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে রকিব হাসান বিপ্লব বলেন, ‘কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই ছাত্রলীগ ক্যাডার মুকিম ও সাগর আমাকে লোহার রড দিয়ে মারতে থাকে। জ্ঞান ফিরে জানতে পারি স্যাররা আমাকে হাসপাতালে নিয়ে এসেছেন।’

হামলার ব্যাপারে অভিযুক্ত ছাত্রলীগকর্মীদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

পাবিপ্রবির প্রক্টর আওয়াল কবির জয় বলেন, ‘ছাত্রলীগ ক্যাডার মুকিম, সাগর ও নাজমুলসহ সাত-আটজনের একটি উচ্ছৃঙ্খল গ্রুপ এই হামলা করে বলে আমরা দুটি অভিযোগ পেয়েছি। এ ব্যাপারে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে দোষীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের চেয়ারম্যান, মানবিক ও সামাজিক অনুষদের ডিন ড. এম আবদুল আলীম জানান, শত শত ছাত্রছাত্রীর সামনে ক্লাসরুমে গিয়ে ছাত্র রকিব হাসানকে পেটানোর ঘটনার নিন্দার ভাষা নেই।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. আল নকীব চৌধুরী এ ঘটনায় তদন্ত কমিটি গঠন করে দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়ার আশ্বাস দিয়েছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক ছাত্র ও শিক্ষক জানান, ছাত্রলীগ কর্মী মুকিমসহ আরো কয়েকজন বিশ্ববিদ্যালয়ে সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছেন। হলের ডাইনিংয়ে ফাউ খাওয়া, কথায় কথায় সাধারণ শিক্ষার্থীদের পেটানো, নকলে বাধা দেওয়ায় শিক্ষকদের লাঞ্ছিত করা তাদের নিত্যদিনের কাজ হয়ে দাঁড়িয়েছে। এদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানিয়েছেন সাধারণ ছাত্র-ছাত্রীরা।