সারাবিশ্বেই মুসলমানদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চলছে – মির্জা ফখরুল

0

রাজধানীর আশকোনার একটি বাড়ি থেকে আহত অবস্থায় উদ্ধার শিশুটির প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, পত্রিকায় দেখলাম জঙ্গি হামলায় চার বছরের শিশু ক্ষত বিক্ষত হয়ে হাসপাতালের বেডে শুয়ে আছে। তা দেখে আমার অন্তর আত্মা শুকিয়ে গেছে।

তিনি বলেন, একটা চার বছরের শিশু গ্রেনেড দ্বারা ক্ষত বিক্ষত হয়ে হাসপাতালের বেডে পড়ে আছে। কেন জঙ্গি আক্রমণ? মা জঙ্গি হচ্ছেন, বাবা জঙ্গি, জানি না সত্য কী, কী অবস্থা জানি না। কিন্তু চার বছরের শিশু এক নির্বাক শক্তিদৃষ্টি দিয়ে সে হাসপাতালে পড়ে আছে। এই অবস্থা চলছে দেশে এখন।

রবিবার রাজধানীর কাজী বশির মিলনায়তনে খেলাফত মজলিসের কেন্দ্রীয় সাধারণ পরিষদের নবম অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

সরকার পরিকল্পিতভাবে এসব ঘটাচ্ছে উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আজকে গোটা রাষ্ট্র ব্যবস্থা ভেঙে পড়েছে। সম্পূর্ণ পরিকল্পিতভাবে বাংলাদেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্র হিসেবে পরিণত করতে এই অনৈতিক সরকার এই সমস্ত কাজ করে যাচ্ছে।

এই সরকারের হাতে কোন মানুষ নিরাপদ নয় জানিয়ে মির্জা ফখরুল বলেন, এই সরকারের আমলে সব জায়গায় নৈরাজ্য চলছে। হিন্দুদের মন্দির ভেঙে দিচ্ছে, বৌদ্ধদের উপাসনালয় ভেঙে দিচ্ছে। সাঁওতালদের বাড়ি থেকে উচ্ছেদ করা হচ্ছে।

তাবেদার সরকার দেশকে গভীর সংকটে ফেলেছে উল্লেখ করে বিএনপির মহাসচিব বলেন, বাংলাদেশে এখন সত্যিকার অর্থেই গণতন্ত্র নাই। দেশের রাজনীতি এখন গভীর সংকটে। শুধু রাজনীতিই নয় অর্থনীতি, পররাষ্ট্রনীতি এখন গভীর সংকটে রয়েছে। আওয়ামী লীগ জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে জনগণের ওপর স্টিম রোলার চালাচ্ছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, খালেদার নেতৃত্বে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলন সংগ্রাম করেছে। এই আন্দোলনে অনেক মূল্য দিতে হয়েছে। অনেকের ফাঁসি হয়েছে, নেতা কর্মীদের মিথ্যা মামলা দিয়ে সারা দেশে এক নৈরাজ্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করেছে এই অনৈতিক সরকার।

সারা বিশ্বে মুসলমানদের ওপর নির্যাতন হচ্ছে উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, আজকে সারাবিশ্বেই মুসলমানদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র চলছে। তারা এক জোট হয়ে গেছে শান্তির ধর্ম ইসলাম ধ্বংস করার চক্রান্ত চলছে। আমাদেরকে প্রমাণ করতে হবে মুসলমানরা বিশৃঙ্খলা চায় না, তারা শান্তি চায়। আমরা শান্তির পক্ষে, বিশ্বশান্তির পক্ষে। মায়ানমারে মুসলিম হত্যাযজ্ঞ চলছে কিন্তু জাতিসংঘ, ওআইসি কোন কথা বলছে না।

খেলাফতে মজলিসের আমির মোহাম্মদ ইসাহাকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন দলের মহাসচিব আহমাদ আব্দুল কাদের, নায়েবে আমির সৈয়দ মুজিবুর রহমান, হেফাজতে ইসলামের নায়েবে আমির নূর হোসেন কাশেমী, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির সভাপতি শফিউল আলম প্রধান প্রমুখ।