সশস্ত্র বাহিনী দিবসে বেগম জিয়ার শুভেচ্ছা-অভিনন্দন

0

ঢাকা: সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ সেনা, নৌ ও বিমান বাহিনীর সকল সদস্যকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

শুক্রবার (২০ নভেম্বর) দলের মুখপাত্র ড. আসাদুজ্জামান রিপনের পাঠানো এক বাণীতে তিনি এ শুভেচ্ছা জানান।

সশস্ত্র বাহিনীর সদস্য ও তাদের পরিবারের সুখ, শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করে বাণীতে খালেদা জিয়া বলেন, দেশের মহান মুক্তিযুদ্ধে আমাদের সশস্ত্র বাহিনীর গৌরবোজ্জল ভূমিকা ইতিহাসে স্বর্ণাক্ষরে লেখা থাকবে। সশস্ত্র বাহিনী সাহস, শৌর্য এবং শৃঙ্খলায় প্রতিষ্ঠিত জাতির এক গর্বের প্রতিষ্ঠান। তাদের গৌরবোজ্জল অবদানের কথা জাতি চিরদিন স্মরণ করবে।

বিএনপি চেয়ারপারসন বলেন, জাতীয় স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব ও দেশের ভৌগোলিক অখণ্ডতা রক্ষায় সশস্ত্র বাহিনীর দেশপ্রেমিক সদস্যরা অতন্দ্র প্রহরীর ভূমিকা পালন করে চলেছেন। বিশ্বশান্তি রক্ষায়ও তারা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন। জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা বাহিনীতে কর্মরত আমাদের সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যরা কর্মদক্ষতা ও উঁচুমানের পেশাদারিত্বের পরিচয় দিয়ে দেশের সুনাম ও মর্যাদা বয়ে আনছেন। দেশের সব প্রাকৃতিক দুর্যোগেও সশস্ত্র বাহিনী অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে সংকট মোকাবেলায় অবদান রাখেন।

খালেদা স্মরণ করেন, বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহিনীকে একটি আধুনিক, গতিশীল ও দক্ষ পেশাদার বাহিনী হিসেবে গড়ে তোলার লক্ষ্যে প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ এবং বাস্তবায়ন করেছিলেন। সেই থেকে বাংলাদেশের সশস্ত্র বাহিনী সুশৃঙ্খল, ক্ষিপ্র ও সদা তৎপর এক আধুনিক বাহিনীতে উন্নীত হয়েছে। পরবর্তী সময়ে বিএনপি সরকারে থাকতে সশস্ত্র বাহিনীকে জিয়‍াউর রহমানের গৃহীত পদক্ষেপের ধারাবাহিক বাস্তবায়নে অগ্রগতি সাধিত হয়েছে। আমাদের সময়ের সরকার সশস্ত্র বাহিনীকে আরও আধুনিকায়ন ও শক্তিশালী করে গড়ে তুলতে সচেষ্ট থেকেছে।

বিএনপি প্রধান বলেন, ভবিষ্যতেও সশস্ত্র বাহিনীকে বিশ্বের অন্যতম একটি সক্ষম ও শক্তিশালী বাহিনীতে পরিণত করতে সকল উদ্যোগ নেওয়া হবে।

তিনি সশস্ত্র বাহিনীর সদস্যদের বিখ্যাত প্রবচন স্মরণ করিয়ে দিয়ে বলেন, ‘হিরোজ লিভ ফরএভার’। বীরেরা সবসময়ই জাতির মানসপটে থাকেন চিরভাস্বর।

সশস্ত্র বাহিনী দিবসের সকল কর্মসূচির সার্বিক সাফল্যও কামনা করেন বিএনপি প্রধান খালেদা জিয়া।