সরকার আদাল‌তের ঘা‌ড়ে বন্দুক রে‌খে‌ছে — খন্দকার মোশাররফ

0

সরকার উচ্চ আদালতের ঘাড়ে বন্দুক রেখে বিএন‌পির চেয়ারপারসন বেগম খা‌লেদা জিয়ার তিন মাস জামিন আটকে রাখে‌ছে ব‌লে অ‌ভি‌যোগ ক‌রে‌ছেন বিএন‌পির স্থায়ী ক‌মি‌টির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হো‌সেন।
বৃহস্প‌তিবার, মে ১০, জাতীয় প্রেসক্লা‌বের কনফা‌রেন্স লাউ‌ঞ্জে খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে খালেদা জিয়া মুক্তি পরিষদ ও গণতান্ত্রিক সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে এক প্রতিবাদ সভায় তিনি একথা বলেন।
সরকারের ইশারায় আজ বিচার বিভাগ পরিচালিত হচ্ছে মন্তব্য ক‌রে মোশাররফ হোসেন বলেন, একটি মিথ্যা ও সাজানো মামলায় খালেদা জিয়াকে সাজা দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি উচ্চ আদালতের ঘাড়ে বন্দুক রেখে খা‌লেদার তিন মাস জামিনও আটকে রাখা হয়েছে।
‌তি‌নি ব‌লেন, শুধু আইনের লড়াইয়ের মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা সম্ভব হবে না। খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হলে আন্দোলন করেই মুক্ত করতে হবে।
‌বিএন‌পি নেতা ব‌লেন, নির্যাতন সহ্য করতে করতে মানুষের যখন আর সহ্যর ক্ষমতা থাকে না, দেয়ালে পিঠ ঠেকে যায়, তখন যে ধরনের প্রতিক্রিয়া দরকার সেটা দেখাতে বাধ্য হয়। আমরা এখন নিরামিষ আন্দোলন করছি। ত‌বে কঠিন থেকে কঠিনতম আন্দোলনে বিএনপি যাবে। এটা সময়ের ব্যাপার মাত্র।
একজনকে দিয়ে আরেকজনকে মাইনাস করার পরিকল্পনা করার চেষ্টা করা হচ্ছে মন্তব্য ক‌রে তি‌নি ব‌লেন, শেখ হাসিনাকে দিয়ে খালেদা জিয়াকে মাইনাস করার চেষ্টা চালানো হচ্ছে। শেখ হাসিনার মাধ্যমে খালেদা জিয়াকে মাইনাসের পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হলে দে‌শে গণতন্ত্র থাক‌বে না।
‌বিএন‌পির প্রবীণ এ নেতা ব‌লেন, বেগম খালেদা জিয়া কারাগারে থাকবে আর একাদশ নির্বাচন হবে এটা সম্ভব না। যারা মনে করে বিএনপি গণজাগরণ সৃষ্টি করতে পারবে না। তাদের বলতে চাই ছাত্ররা যেভাবে আন্দোলন করেছে, মাত্র তিনদিনে গণজোয়ার তৈরি হয়েছে। তিনদিন আগে সাংবাদিকসহ গোয়েন্দারাও বুঝতে পারেনি কি প‌রি‌স্থি‌তি সৃ‌ষ্টি হ‌তে যা‌চ্ছে।
তি‌নি ব‌লেন, সময় আসছে একই ধরনের গণজাগরণ সৃষ্টি হবে। সেটা কোন নোটিশ দিয়ে আসবে না। তাই বল‌ছি দে‌শে গণতন্ত্র নি‌য়ে আসুন সুষ্ঠু বিচার ব্যবস্থা নি‌শ্চিত ক‌রে বেগম খা‌লেদা জিয়াকে মু‌ক্তি দিন তা নাহ‌লে গণ‌জোয়া‌রে ভে‌সে যা‌বেন।
খুলনার নির্বাচ‌নের কথা উ‌ল্লেখ ক‌রে খন্দকার মোশাররফ ব‌লেন, খুলনায় তাদের নিয়ন্ত্রিত পুলিশ নিয়ে ওরা একসঙ্গে নির্বাচনে নেমেছে। আর তারাই বলছে খুলনায় নাকি লেবেল প্লেয়িং ফিল্ড নেই। আস‌লে তারা পরিকল্পনা করেছে আগের দিন সিল মারার। এ দুঃসাহস করবেন না। জনস্রোতের ভেসে যাবেন। খুলনার জনগণ প্রস্তুত আছে। যে কোন ধরনের ভোট ডাকাতি ঠেকাবে তারা। জনগণ এটা প্রতিহত করবে।
বিএন‌পির যুগ্ম মহাস‌চিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, লগি বৈঠা নিয়ে ঢাকায় আসার আহ্বান জানিয়েছিলেন শেখ হাসিনা। এরপর কি হয়েছে তা সবার‌ জানা। এই ঘটনায় একটা মামলাও হয়নি। বিএনপির এতো উদারতা ভালো না। আওয়ামী লীগের সকল কুকর্ম প্রকাশ করা উচিত।
তি‌নি ব‌লেন, বিএনপি নির্বাচনে অংশগ্রহণ করবে তবে সেই নির্বাচনী সরকারের প্রধান শেখ হাসিনা থাকবে না।
আলাল ব‌লেন, আওয়ামী লীগ একটি অপ দল। আপনারা একটা আঙ্গুল তুলবেন তারা তাদের গোয়েন্দা বাহিনী ও চ্যালা চামুণ্ডা দিয়ে ২০টা আঙ্গুল তুলে বলবে বিএনপি আঙ্গুল তুলেছে।
খালেদা জিয়া মুক্তি পরিষদের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মিজানুর রহমান চৌধুরীর সভাপতিত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন যুগ্ম মহাসচিব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মোহাম্মদ রহমত উল্লাহ প্রমুখ।