সরকার সমাবেশের অনুমতি নিয়ে রসিকতা করছে : নজরুল ইসলাম খান

0

একটি গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল হিসেবে বিএনপির সভা-সমাবেশ করার অধিকার রয়েছে জানিয়ে দলটির নেতা নজরুল ইসলাম খান বলেছেন, শান্তিপূর্ণ সমাবেশের অনুমতি না দিয়ে সরকার রসিকতা করছে।শনিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে এক আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন। ৭ নভেম্বর ‘জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস’ উপলক্ষে এর আয়োজন করে জাতীয়তাবাদী ওলামা দল।আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সমালোচনা করে দ্রুত সমাবেশের অনুমতি দিতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

গত ৭ নভেম্বর ‘বিপ্লব ও সংহতি দিবস’ উপলক্ষে রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে সমাবেশের অনুমতি চাইলেও তা পায়নি বিএনপি। পরে ৮ নভেম্বর নয়াপল্টনে বিএনপি কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে অনুমতি চেয়ে আবেদন করে দলটি। কিন্তু সড়কে সমাবেশ করা যাবে না- এই কারণে  সেখানেও অনুমতি দেওয়া হয়নি।তবে সোহরাওয়ার্দী উদ্যান বা নয়াপল্টনের পরিবর্তে গত মঙ্গলবার ২৭ শর্তে ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে বিএনপিকে সমাবেশের অনুমতি দেয় ডিএমপি। সেই অনুমতি প্রত্যাখ্যান করে ১৩ নভেম্বর রাজধানীর সোহরাওয়ার্দী উদ্যান চেয়ে দ্বিতীয় দফায় আবেদন করে বিএনপি।

নজরুল ইসলাম খান বলেন, সভা-সমাবেশ করা বিএনপির সাংবিধানিক অধিকার। ৭ নভেম্বর জাতীয় বিপ্লব ও সংহতি দিবস উপলক্ষে রাজধানীর দুটি জায়গায় অনুমতি চাওয়া হয়েছিল। কিন্তু সরকার বিএনপির শান্তিপূর্ণ সমাবেশের অনুমতি দিচ্ছে না। উল্টো অনুমতি নিয়ে কুৎসিত রসিকতা করছে।সারাদেশে বিএনপির নেতা-কর্মীদের ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ‘নিপীড়ন-নির্যাতন করছে’ অভিযোগ করে দলটির এই নীতি নির্ধারক বলেন, সরকারের আতঙ্কে আমাদের অনেক নেতা-কর্মী তাদের বাড়িঘর ছেড়ে রাস্তায় রাস্তায় ঘুরছে। এমনকি বিএনপি নেতাদের পুকুরের মাছ ও গাছের ফল আওয়ামী লীগের নেতারা লুটপাট করছে।

সরকারকে ‘মামলাবাজ’ আখ্যা দিয়ে নজরুল ইসলাম বলেন, বিরোধী রাজনৈতিক দলের নেতা-কর্মীদের বিরুদ্ধে মামলা ও হয়রানি করে তারা ক্ষমতায় টিকে থাকতে চায়।ওলামা দলের সভাপতি এম এ মালেকের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য দেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মো. নেছারুল হক, বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য আবু নাসের মো. রহমতউল্লাহ প্রমুখ।