সকলের অংশগ্রহনে বাংলাদেশে একটি প্রতিযোগিতামূলক নির্বাচন চায়: বৃটিশ কনজারভেটিভ পার্টি

0

জিসাফো ডেস্কঃ বাংলাদেশে আগামীতে সকলের অংশগ্রহনে একটি প্রতিযোগিতামূলক নির্বাচন হবে এরকম প্রত্যাশা ব্যক্ত করেছে ক্ষমতাসীন বৃটিশ কনজারভেটিভ পার্টি। সোমবার বিকালে বিএনপির সঙ্গে ঘন্টাব্যাপী বৈঠকের পর এক সংবাদ ব্রিফিঙে কনজারভেটিভ পার্টির এমপি অ্যান মেইন এই কথা জানান।

তিনি বলেন,‘‘ আমরা আশাবাদী আগামীতে বাংলাদেশে একটি প্রতিযোগিতামূলক নির্বাচন হবে যেখানে প্রত্যেকে সুযোগ পাবে সমাবেশ করার, আলোচনা করার, সমবেতন হওয়ার, জনগনের পক্ষে কথা বলার এবং তাদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে পারবে।”

‘‘ গণতান্ত্রিক দেশের মানুষ হিসেবে আমি এটাতে একমত যে, যেকোনো নির্বাচনই সুষ্ঠু ও অংশগ্রহনমূলক হওয়া অত্যন্ত জরুরী। আমি আশাবাদী যে বাংলাদেশের পরবর্তি নির্বাচনে সকল দল অংশগ্রহন করতে পারবে।”অ্যান মেইন আরো আশাবাদ ব্যক্ত করেন বিএনপি আগামী নির্বাচনে অংশগ্রহন করবে।

গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে বিকালে বিএনপির সঙ্গে কনভারভেটিভ পার্টির ৭ সদস্যের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে বৈঠক হয়।কনজারভেটিভ পার্টির নেতৃত্ব দেন এ্যান মেইন।

বৈঠকে বিএনপি নেতৃত্ব দেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ৮ সদস্যের প্রতিনিধি দলে ছিলেন স্থায়ী কমিটির সদস্য খন্দকার মোশাররফ হোসেন, আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য সাবিহউদ্দিন আহমেদ, আবদুল কাইয়ুম ও বিশেষ সম্পাদক আসাদুজ্জামান রিপন।

এ্যান মেইনের বাংলাদেশে এটি ৬ষ্ঠ সফর। গত মঙ্গলবার কনভারভেটিভ পার্টির ২২ সদস্যের প্রতিনিধি দলটি ঢাকায় আসেন। তারা সিলেটে বৃটিশ সরকারের কয়েকটি প্রকল্পও পরিদর্শন করেন।

বৈঠকে দেশের রাজণৈতিক পরিস্থিতি, মানবাধিকার পরিস্থিতি, রোহিঙ্গা সমস্যাসহ বাংলাদেশে আর্থ সামাজিক নানা বিষয়ে আলোচনা হয়।

সংবাদ ব্রিফিংয়ে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘‘ আমাদের সাথে অত্যন্ত ভালো একটা বৈঠক হয়েছে, আলোচনা হয়েছে। তারা বাংলাদেশের রাজনীতি সম্পর্কে জানতে আগ্রহী। আমরা তাদেরকে দেশের রাজণৈতিক পরিস্থিতি সম্পর্কে জানিয়েছি। তারা যেটা বলে গেলেন যে, তারা বাংলাদেশে একটা অংশগ্রহনমূলক অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচন দেখতে চান যাতে জনগনের যে ইচ্ছা তা মুক্তভাবে প্রকাশ করতে পারে।”

বৃটিশ কনভারভেপটিভ পার্টির এই প্রতিনিধিদলটি মঙ্গলবার কক্সবাজারের রোহিঙ্গা শরনার্থী শিবিরে পরিদর্শনে যাবেন বলে জানান এ্যান মেইন।