শেখ হাসিনার জন্মদিনের আনন্দ মিছিলে মারামারি : আহত ৮

0

লক্ষ্মীপুর: প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ হাসিনার ৬৯তম জন্মদিন উপলক্ষে লক্ষ্মীপুরে জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে বের হওয়া আনন্দ মিছিলে মারামারি ঘটনা ঘটেছে।

শ্লোগান দেয়াকে কেন্দ্র করে সোমবার দুপুরে শহরের চক বাজার ও উত্তর তেমুহনীতে এ ঘটনা ঘটে। এতে চন্দ্রগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের আহ্বায়ক মো. আলাউদ্দিনসহ ৮ জন আহত হয়। এ সময় কয়েকটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটানো হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী ও দলীয় সূত্র জানায়, জেলা ছাত্রলীগের ব্যানারে শহরের উত্তর তেমুহনীতে থেকে আনন্দ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি চক বাজার ব্রিজে পৌঁছলে সদর উপজেলার পাঁচপাড়া এলাকার ছাত্রলীগ নেতা রিয়াজ জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক রাকিব হোসেন লোটাসের পক্ষে শ্লোগান দেয়। এতে ক্ষুদ্ধ হয়ে ওঠে জেলা কমিটির সভাপতি চৌধুরী মাহমুদুন্নবী সোহেল ও তার অনুসারীরা। একপর্যায়ে জেলা সভাপতির পক্ষ নিয়ে চন্দ্রগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক কাজী মামনুর রশিদ বাবলু জেলা সাধারণ সম্পাদকের অনুসারি হিসেবে পরিচিত চন্দ্রগঞ্জ কমিটির আহ্বায়ক মো. আলাউদ্দিন ও তার লোকজনের ওপর হামলা করে। পরে মিছিলটি উত্তর তেমুহনীতে গেলে দু’পক্ষ ফের মারামারিতে জড়ায়। এতে অন্তত ৮ নেতাকর্মী আহত হয়।

আহতরা হলেন- রিয়াজ হোসেন, মো. আলাউদ্দিন, সাইফুল ইসলাম স্বপন, ইমরান, আল আমিন ও কাদেরসহ ৮ জন। তারা স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়েছে। তারা চন্দ্রগঞ্জ থানা কমিটির বিভিন্ন স্থরের নেতাকর্মী।

চন্দ্রগঞ্জ কমিটির আহ্বায়ক মো. আলাউদ্দিন বাংলামেইলকে বলেন, ‘জেলা সাধারণ সম্পাদকের পক্ষে শ্লোগান দেয়ায় সভাপতি নিজের অনুসারীদের নিয়ে আমাদের ওপর হামলা করেছে। এতে আমাদের ৬ নেতাকর্মী আহত হয়।’

জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি চৌধুরী মাহমুদুন্নবী সোহেল অভিযোগ অস্বীকার করে  বলেন, ‘নিজেদের মধ্যে তুচ্ছ ঘটনা নিয়ে সামান্য ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। পরে আবার মিমাংসা হয়ে গেছে।’

এ ব্যাপারে লক্ষ্মীপুর সদর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) মো. নাজিম উদ্দিন বলেন, ‘মিছিলে দু’পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা ছিল। পুলিশি সতর্কতার কারণে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। এ বিষয়ে থানায় কেউ অভিযোগ করেনি।’