শহীদ জিয়ার শাহাদৎ বার্ষিকীর সভায় ছাত্রলীগের হামলা

0

কেএম সবুজঃবরিশালের গৌরনদী উপজেলায় বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা মেজর জিয়াউর রহমানের শাহাদাত বার্ষিকীর আলোচনা সভায় হামলা চালিয়ে পণ্ড করে দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে।

ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের হামলায় বিএনপির ১০ নেতাকর্মী আহত হয়েছে। সেই সঙ্গে ১টি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়। তবে এ ঘটনায় উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম-আহ্বায়ক আবুল হোসেন বেপারীকে (৪২) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার সকাল সোয়া ১০টার দিকে গৌরনদী পৌরসভার তিকাসার এলাকায় উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আ. মান্নান খানের বাড়িতে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

গৌরনদী উপজেলায় বিএনপির একাধিক নেতা জানান, সাবেক রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের ৩৭তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে বিএনপির উদ্যোগে বুধবার সকালে উপজেলা বিএনপির সহ-সভাপতি আ. মান্নান খানের বাড়িতে আলোচনা সভা ও দোয়ার আয়োজন করা হয়। সেখানে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীরা হামলা চালিয়ে বিএনপির ১০ নেতাকর্মীকে আহত করেছে। পাশাপাশি একটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করে তারা।

বিএনপি নেতা আ. মান্নান খান অভিযোগ করে বলেন, সকাল ১০টার দিকে আলোচনা সভা শুরু হয়। সকাল সোয়া ১০টার দিকে উপজেলা ছাত্রলীগের সহ-সভাপতি হিমেল মিয়ার নেতৃত্বে ছাত্রলীগের ১৫-২০ নেতাকর্মী লাঠিসোটা নিয়ে তার বাড়িতে আলোচনা সভায় হামলা চালায়। এতে আলোচনা সভা পণ্ড হয়ে যায়।

এ সময় হামলাকারীরা উপজেলা যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক মনির হাওলাদার, পৌর যুবদলের যুগ্ম-সম্পাদক লিটন খান, উপজেলা যুবদলের কর্মী শাহাবুদ্দিন বেপারী, উপজেলা ছাত্রদলের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য রুবেল গোমস্তা, এসএম হীরা, এনাম তালুকদার, পৌর ছাত্রদল নেতা মশিউর শরীফসহ যুব ও ছাত্রদলের ১০ নেতাকর্মীকে পিটিয়ে আহত করে। এছাড়া পৌর যুবদলের যুগ্ম-সম্পাদক লিটন খানের মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়। হামলাকারীদের হুমকির ভয়ে আহতরা হাসপাতালে চিকিৎসা না নিয়ে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিচ্ছেন।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পৌঁছে উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম-আহ্বায়ক লাখেরাজ কসবা গ্রামের আবুল হোসেন বেপারীকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায়।

উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি জুবায়ের ইসলাম সান্টু ভূঁইয়া জানান, হামলার ঘটনার সঙ্গে ছাত্রলীগের কোনো নেতাকর্মী জড়িত ছিল না। বিএনপির অভ্যন্তরীণ কোন্দলের জের ধরে বিএনপির এক পক্ষ অপর পক্ষের ওপর হামলা করেছে।

গৌরনদী মডেল থানা পুলিশের ওসি মুনিরুল ইসলাম মুনির জানান, হামলার বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না। লিখিত অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আবুল হোসেন বেপারীকে গ্রেফতারের বিষয়ে ওসি বলেন, বিস্ফোরক মামলার আসামি আবুল হোসেন বেপারি। তাই তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।