রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে ৫ দফা সুপারিশ সম্বলিত বিভিন্ন দেশ ও সংস্থার কাছে চিঠি;বেগম খালেদা জিয়া

0

জিসাফো ডেস্কঃ রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে জাতিসংঘের অধীনে নিরপেক্ষ আন্তর্জাতিক তদন্ত সংস্থা গঠনসহ পাঁচ দফা সুপারিশ সম্বলিত একটি চিঠি বিশ্বের বিভিন্ন দেশ ও সংস্থার কাছে পাঠিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। একই সঙ্গে, এ গণহত্যা বন্ধ ও রোহিঙ্গাদের নাগরিকত্ব ফিরিয়ে দিতে মিয়ানমার সরকারের ওপর সম্ভাব্য সব ধরনের পদক্ষেপ নিতে বিশ্ববাসীর প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে ওই চিঠিতে।

জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী ও অস্থায়ী সদস্য দেশ এবং ওআইসির অন্তর্ভুক্ত দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রীদের কাছে এ চিঠি পাঠানো হয়েছে।

যুক্তরাজ্য থেকে সম্প্রতি ডাক যোগে এ চিঠি পাঠানো হয়েছে বলে শুক্রবার নিশ্চিত করেছেন বিএনপির আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার নওশাদ জমির। তিনি জানান,এ চিঠি চেয়ারপারসনের নির্দেশে তার পক্ষ থেকে পাঠানো হয়েছে।

পৃথক একটি সূত্র জানিয়েছে, প্রায় একই ধরনের চিঠি ডাকযোগে খালেদা জিয়ার পক্ষ থেকে ঢাকায় নিযুক্ত বিভিন্ন দেশের রাষ্ট্রদূত ও সংস্থার প্রতিনিধিদের কাছে পাঠানো হয়েছে।

এদিকে,এ চিঠি দিয়েই বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া চুপ করে থাকবেন না বলে জানা গেছে। এ ইস্যুতে খালেদা জিয়া ও তার দল বিএনপি আরও সক্রিয় হবে। মিয়ানমারে গণহত্যা, ধর্ষণসহ নিরীহ অসহায় রোহিঙ্গাদের ওপর বর্বর নির্যাতনের সঙ্গে জড়িতদের তদন্ত সাপেক্ষে আন্তর্জাতিক আদালতে বিচারের মুখোমুখি করতে সাবেক এ প্রধানমন্ত্রী আন্তর্জাতিক সোচ্চার হবেন বলে দলীয় সূত্রে জানা গেছে।

কূটনীতিক উইংয়ের একজন সদস্য জানান, ইতোমধ্যে খালেদা জিয়া দলের সংশ্লিষ্ট নেতাদের এ ব্যাপারে কূটনৈতিক তত্পরতা বাড়াতে নির্দেশনা দিয়েছেন। সে অনুযায়ী কূটনীতিকদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখা হচ্ছে।

রোহিঙ্গা সঙ্কট নিরসনের খালেদা জিয়ার পাঁচ দফা সুপারিশের মধ্যে রয়েছে-

মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের বাস্তব অবস্থা নির্ধারণের জন্য জাতিসংঘের অধীনে নিরপেক্ষ আন্তর্জাতিক তদন্ত সংস্থা গঠন করতে হবে। প্রয়োজনে জাতিসংঘের অধীনে পদক্ষেপ নিতে হবে।

রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠী জরুরি সহায়তা হিসেবে যেসব ত্রাণ পায়-এর ওপর থেকে সমস্ত বিধিনিষেধ তুলে নিতে মিয়ানমার সরকারকে তাগিদ দিতে হবে।

রোহিঙ্গাদের সঙ্গে যোগাযোগ এবং রাখাইন রাজ্য পর্যবেক্ষণ করতে সাংবাদিক ও মানবাধিকার বিষয়ক পর্যবেক্ষকদের প্রবেশের অনুমতি দিতে মিয়ানমার সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে হবে।

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের আশ্রয় ও ত্রাণ সহায়তা এবং তাদের নিজ দেশে ফেরত পাঠাতে বাংলাদেশের সব প্রচষ্টোয় সহযোগিতা করতে হবে।

রোহিঙ্গাদের মৌলিক ও মানবিক মর্যাদা এবং শিশুদের অধিকার নিশ্চিত করতে তাদের রাষ্ট্রহীন অবস্থার ইতি ঘটাতে হবে।

বিএনপির কূটনৈতিক উইং সূত্র জানিয়েছে, উল্লেখিত সুপারিশ ছাড়াও খালেদা জিয়া রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠীর ওপর পরিচালিত গণহত্যা বন্ধে মিয়ানমার সরকারের ওপর সম্ভাব্য সব ধরনের পদক্ষেপ নিতে বিশ্ববাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।