রোহিঙ্গা প্রশ্নে বাংলাদেশ সরকারের ভূমিকাও প্রশ্নবিদ্ধ: মির্জা আলমগীর

0

জিসাফো ডেস্কঃ বাংলাদেশে এসে আশ্রয় নেয়া রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর বিষয়ে বিশ্বব্যাপী কূটনৈতিক তৎপরতা বাড়াতে বিএনপির প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিশিষ্টজনেরা। তারা বলছেন, পুরো জাতি রোহিঙ্গা ইস্যুতে ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নিজেরা ঐক্য না করলেও সারাদেশের মানুষ এই ইস্যুতে এক। বিএনপির উচিত তাদের নিজেদেরই একটি কমিটি করে সারা পৃথিবীতে মুভ করা। কফি আনান রিপোর্টটি সারাবিশ্বে তুলে ধরা।

অন্যদিকে বিএনপি নেতারা রোহিঙ্গা ইস্যুতে সরকারের ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ বলে দাবি করেছেন। এই মানবিক বিপর্যয়ের জন্য তারা মিয়ানমার সরকারকে দায়ী করেন।

রবিবার বিকালে রাজধানীর গুলশানের হোটেল লেকশোরে আয়োজিত এক গোলটেবিল বৈঠকে তারা এসব কথা বলেন। ‘জেনোসাইড ইন মিয়ানমার অ্যান্ড দ্য রোল অব বাংলাদেশ’ শীর্ষক এই গোলটেবিল বৈঠকের আয়োজন করে বিএনপি। গোলটেবিলটি সঞ্চালনা করেন সাংবাদিক ড. মাহফুজ উল্লাহ।

স্বাগত বক্তব্যে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর মিয়ানমারে গণহত্যা চলছে বলে মন্তব্য করেন।  সরকারের সমালোচনা করে ‌তিনি বলেন, ‘রোহিঙ্গা প্রশ্নে বাংলাদেশ সরকারের ভূমিকাও প্রশ্নবিদ্ধ হয়েছে। তাদের দ্বিধান্বিত ও বিলম্বিত প্রতিক্রিয়ার কারণে। এটি জাতির জন্য বড় চ্যা‌লেঞ্জ। এই মানবিক বিপর্যয়ের জন্য মিয়ানমার সরকার দায়ী। তারা রোহিঙ্গা জাতিগোষ্ঠীকে নির্মূল করতে বদ্ধপরিকর। ইতোমধ্যেই আন্তর্জাতিক গণআদালত মিয়ানমার সেনাপ্রধান ও অং সাং সু চিকে অভিযুক্ত করেছে।’

আলোচনায় অংশ নিয়ে মানবাধিকারকর্মী অ্যাডভোকেট এলিনা খান বলেন, ‘পুরো জাতি রোহিঙ্গা ইস্যুতে ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। আওয়ামী লীগ ও বিএনপি নিজেরা ঐক্য না করলেও সারাদেশের মানুষ এই ইস্যুতে এক। রোহিঙ্গা শরণার্থীরা বিশেষ করে নারী এবং শিশুরা অত্যন্ত খারাপ অবস্থায় আছে। ৫-১০ বছরের শিশুরা সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিপূর্ণ জায়গায় রয়েছে।’

এলিনা বলেন, ‘এই অবস্থায় একটি দল হিসেবে বিএনপির উচিত তাদের নিজেদেরই একটি কমিটি করে সারা পৃথিবীতে মুভ করা। কফি আনান রিপোর্টটি সারাবিশ্বে তুলে ধরা।’

রোহিঙ্গা ইস্যুতে আওয়ামী লীগ ও বিএনপিকে ঐক্যমতে আসতে হবে বলে মনে করেন জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক দিলারা চৌধুরী। ‘জেনোসাইড ইন মিয়ানমার অ্যান্ড দ্য রোল অব বাংলাদেশ’ বিষয়ে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সাবেক রাষ্ট্রদূত সিরাজুল ইসলাম।

নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না রোহিঙ্গা সংকট ক্রমেই বাড়ছে উল্লেখ করে সংকট সমাধানে বাংলাদেশ ও মিয়ানমার উভয় সরকার ও আন্তর্জাতিক ফোরামের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে প্রধান রাজনৈতিক দল হিসেবে বিএনপিকে বিভিন্ন কর্মসুচি দেয়ার আহ্বান জানান।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক আসিফ নজরুল রোহিঙ্গা সংকটকে বৈশ্বিক রাজনৈতিক সমস্যা উল্লেখ করে সব রাজনৈতিক দলের সঙ্গে আলোচনা করেই তা সমাধানে সরকারের প্রতি আহ্বান জানান।

এতে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, লে. জেনারেল (অব.) মাহবুবুর রহমান, ড. আবদুল মঈন খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান এম মোর্শেদ খান, যুগ্ম মহাসচিব হাবিব-উন-নবী খান সোহেল, মজিবর রহমান সরোয়ার, মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, বিশেষ সম্পাদক আসাদুজ্জামান রিপন ও শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক ড. এবিএম ওবায়দুল ইসলাম প্রমুখ।