রূপগঞ্জে যুবলীগ ও ছাত্রলীগের সংঘর্ষ

0

কেএম সবুজঃ নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে এমপি সমর্থিত যুবলীগ ও ছাত্রলীগের দু‘গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। সংঘর্ষের সময় একপক্ষ আরেক পক্ষকে লক্ষ্য করে আগ্নেয়াস্ত্র বের করে গুলি ছুড়ে। এসময় তাদের গুলিতে পারুল বেগম নামে এক পথচারী গুলিবিদ্ধসহ উভয়পক্ষের কমপক্ষে ৮ জন আহত হয়েছে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে বড় ধরনের সংঘাতের আশঙ্কা করছে স্থানীয়রা। বর্তমানে চরম আতঙ্কে রয়েছে স্থানীয় জনসাধারণ। আজ রোববার সন্ধ্যার দিকে উপজেলার তারাব পৌরসভা রূপসী স্লুইস গেইট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় প্রত্যেক্ষদর্শীরা জানান, দীর্ঘদিন ধরে রূপসী এলাকার সিটি মিলের তেলের ব্যবসা নিয়ন্ত্রন করে আসছিল তারাব পৌর যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রাসেল, আলমগীরসহ একটি পক্ষ। অপরদিকে কয়েকদিন ধরে স্থানীয় এমপি গোলাম দস্তগীর গাজীর স্ত্রী তারাব পৌরসভার মেয়র হাসিনা গাজীর ব্যাক্তিগত সহকারী ফিরোজ তার লোকজনের মাধ্যমে এ ব্যবসা দখলে নেয়ার পায়তারা করে আসছে।
এরই জের ধরে আজ সন্ধ্যার দিকে ফিরোজের পক্ষ নিয়ে উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক রিয়াজ আহমেদ ও সোহান, পাপ্পুর সাথে য্বুলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রাসেল ও আলমগীরের কথাকাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে উভয় পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এসময় ছাত্রলীগনেতা রিয়াজ, সোহান, পাপ্পু আগ্নেয়াস্ত্র বের করে গুলি ছুড়তে থাকে। সংঘর্ষ চলাকালীন সময় রাস্তা দিয়ে যাবার সময় তাদের গুলিতে ঔ এলাকার মৃত সিরাজুল ইসলামের স্ত্রী পারুল বেগম নামে এক পথচারী পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়। আহত হয় আরো ৭ জন। আহত গুলিবিদ্ধ মহিলাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এদিকে এ রিপোর্ট লিখা পর্যন্ত এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে স্থানীয় এমপি গাজী গোলাম দস্তগীরের রূপসীস্থ্য বাড়ীর সামনে দু‘পক্ষ অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে অবস্থান করছেন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি স্বাভাবিক করার চেষ্টা করছে।

এ ব্যাপারে রূপগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মনিরুজ্জামান বলেন, সংঘর্ষের খবর পাবার সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। বর্তমানে পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে।