রংপুরে ভোট কেন্দ্রে আনসারের পোশাকে ছাত্রলীগ

0

জিসাফো ডেস্কঃ রংপুরের পীরগঞ্জের ১১ টি ইউনিয়নে ভোট গ্রহন চলছে। তবে মদনখালি ইউনিয়নের জাফরপাড়া কেন্দ্রে এজেন্টদের বের করে দিয়ে আওয়ামীলীগ কর্মীরা সিল মেরে নিতে দেখা গেছে। এছাড়াও কেন্দ্রে ছাত্রলীগ কর্মীরা আনসার ও ভিডিপির পোশাক পরে ডিউটি দিতে দেখা গেছে।

সকাল ৮ টা থেকেই কেন্দ্রগুলোতে ভোটারদের উপস্থিতি দেখা গেছে চোখে পড়ার মতো। মদনখালি ইউনিয়নের জাফরপাড়া দারুল উলুম কামিল মাদরাসা কেন্দ্রের ২ নং বুথে গিয়ে দেখা গেছে সেখানে নৌকা প্রতীকের এজেন্ট জেসমিন বেগম গোপন কক্ষে গিয়ে সব ভোটারের ভোট দিচ্ছেন। এর কিছুক্ষণ পর ওই কেন্দ্রে বিএনপির সকল এজেন্টদের বের করে দিয়ে নৌকা প্রতিকে সিল মারা নিয়ে জেলা বিএনপির সহ সভাপতি ও পীরগঞ্জ উপজেলা চেয়ারম্যান নুর মোহাম্মদ মন্ডলের সাথে বুথের ভেতরে বচসা হয় আওয়ামীলীগ এজেন্টদের সাথে।

পরে তিনি অভিযোগ করেন, এটা তামাশার নির্বাচন, আমাদের এজেন্টদের বের করে দিয়ে নৌকা প্রতীকে সিল মারা হচ্ছে। প্রশাসনকেও বার বার বলার পরও তারা কোন এ্যকশন নিচ্ছে না। তারা কেন্দ্রের বাইরে আছে।

এদিকে সিল মেরে নেয়া প্রসঙ্গে আওয়ামীলীগের এজেন্ট জেসমিন বেগম বলেন, যদি ভোটারদেও আপত্বি না থাকে তবে আপনাদেও সমস্যা কোথায়। এই বুথের পোলিং অফিসার সেকেন্দার আলী বলেন, আমার করার কিছুই নেই।

এ ঘটনার পর সেখানে উপত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে সেখানে আসেন এএসপি বি সার্কেল সাইফুর রহমান সাইফ, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা জিএম শাহাতাব উদ্দিন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক প্রিয় সিন্ধু তালুকদারে র নেতৃত্বে মোবাইল টিম নিয়ে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। তারা চলে যাওয়ার পর আবারও সিল মারাতে থাকা সরকার সমর্থকরা

এদিকে মদনখালি সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে গেছে আনসার ও ভিডিডি প্রতিরক্ষা বাহিনী লেখা কটি পড়ে আছে ছাত্রলীগ কর্মীরা। ওই কেন্দ্রে লাঠি হাতে ওই পোশাক পড়ে থাকা লিটন মিয়া বলেন আমি পীরগঞ্জ শাহ আব্দুর রউফ কলেজে ডিগ্রী তৃতীয় বর্ষে পড়ি। ছাত্রলীগের কর্মী। পীরগঞ্জ আনসার ভিডিপি অফিস থেকে আমাদেও এই পোশাক দেয়া হয়েছে। আনসারের কোন নাম নম্বর ও সনদ নেই তাদের। কতটাকা ভাতা পাবেন তাও জানেন না। জানেননা উপজেলা আনসার কমান্ডারের নাম ও কিংবা ইউনিট প্রধানের নাম। একই কথা বলেন একই পোশাক পরিহিত ছড়ান উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এসএসসি দেয়া শাহান আলী। তিনি বলেন, দুই দিনের জন্য আছি। লিডারের নির্দেশ। এর বেশী কিছু বলতে রাজি হয় নি শাহান। তবে সাংবাদিক পরিচয় পাওয়ার পর তারা আতকে ওঠেন। পাশেই আওয়ামীলীগ কর্মীদের দেখা যায় তাদেরকে আর ইনফরমেশন না দিতে। পরে খোজ নিয়ে জানা যায়, পুরো পীরগঞ্জেই ছাত্রলীগ যুবলীগের কর্মীরা আনসারের পোশাক পওে ডিউটি করে।

এই উপজেলার ১১ টি ইউনিয়রে ১০৭ টি কেন্দ্রের ৬৪৩ টি ভোট কক্ষে ভোট গ্রহন চলছে। এখানে ভোটার আছেন ১ লাখ ৯৯ হাজার ৩৪৩ জন। চেয়ারম্যান পদে ৫৩ জন, মহিলা সদস্য পদে ১৩৭ জন এবং সদস্য পদে ৪৪১ জন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।