যুবলীগ নেতার গ্রেফতার দাবিতে রেল শ্রমিকদের সমাবেশ

0

চট্টগ্রাম: রাজশাহী রেলস্টেশনে এক কর্মকর্তাকে লাঞ্ছিত করার প্রতিবাদে এবং ঘটনায় জড়িত যুবলীগ নেতাকে গ্রেফতারের দাবিতে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে রেলের কর্মচারীরা।

সোমবার সকাল সাড়ে ১১টায় রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপকের কার্যালয়ের সামনে এ কর্মসূচি পালন করে বাংলাদেশ রেলওয়ে ট্রাফিক কর্মচারী ঐক্য পরিষদ।

সমাবেশে বক্তারা রাজশাহী জেলার বোয়ালীয়া থানা (পূর্ব) যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ার হোসেন রাজার গ্রেফতার ও তার ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান রাজা এন্টারপ্রাইজকে কালো তালিকাভুক্ত করার দাবি জানান। ৭২ ঘণ্টার মধ্যে দাবি পূরণ না হলে কঠোর কর্মসূচির হুমকিও দেওয়া হয় সমাবেশে।

সমাবেশ শেষে কর্মচারী ঐক্য পরিষদের কয়েকজন প্রতিনিধি রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক মোজাম্মেল হক বরাবর স্মারকলিপি প্রদান করেন। মহাব্যবস্থাপকের পক্ষে অতিরিক্ত মহাব্যবস্থাপক সৈয়দ ফারুক আহমেদ স্মারকলিপি গ্রহণ করেন।

কর্মচারীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, গত ২৫ আগস্ট রেলওয়ে পশ্চিমাঞ্চলের তিতুমীর এক্সপ্রেস ট্রেনে টিকেট চেক করছিলেন সহকারী বাণিজ্যিক কর্মকর্তা (এসিও) আবদুল্লাহ আল মামুন। যাদের কাছে টিকেট পাওয়া যায়নি তাদের টিকেট করতে বাধ্য করেন তিনি। এসময় যুবলীগ নেতা আনোয়ার হোসেন রাজা’র সমর্থিত এক কর্মী বিনা টিকেটে ভ্রমণ করছিল। টিকেট নিতে বাধ্য করলে তিনি বলেন,‘রাজা ভাই’র লোক কখনো টিকেট করে না।’

এরপর বাণিজ্যিক কর্মকর্তা নির্ধারিত ভাড়ায় তাকে টিকেট নিতে বাধ্য করেন। টিকেট চেকিং কার্যক্রম শেষে ওই কর্মকর্তা রাজশাহী স্টেশন মাস্টারের কক্ষে অবস্থান নেন। এসময় ১০ থেকে ১২ জনের একটি দল লাঠি-সোটা নিয়ে রুমে প্রবেশ করে রেল কর্মকর্তার সঙ্গে দুর্ব্যবহার করে এবং শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে।

ঘটনার সুষ্ঠু বিচার দাবি করে কর্মচারীরা বলেন, ঘটনার সঙ্গে জড়িত চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে, না হলে ভতিষ্যতে আরও বড় ঘটনা ঘটতে পারে।

এদিকে রেল কর্মকর্তাকে যারা লাঞ্ছিত করেছেন তাদেরকে চিনেন না বলে দাবি করেছেন মো. আনোয়ার হোসেন রাজা। তিনি বলেন, ঘটনার দিন আমি শহীদপুরে ছিলাম। এসে ঘটনার ভিডিও ফুটেজ দেখেছি। যারা এ ঘটনা ঘটিয়েছে তারা ১৫ থেকে ১৬ বছরের বালক। তাদের আমি চিনি না।

বাংলাদেশ রেলওয়ে ট্রাফিক কর্মচারী ঐক্য পরিষদের সভাপতি সাইদ খোকনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে সাধারণ সম্পাদক আবদুস সালাম ভূঁইয়া, মহসিন তালুকদার, সাজ্জাদ হোসেন, মোহাম্মদ সুজন, জিয়াউর রহমান, আলাউল কায়সার, রেজাউল করিম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।