মেরুদন্ডহীন সিইসির লজ্জায় মরে যাওয়া উচিত :বি. চৌধুরী

0

কে এম সাদ্দামঃ প্রধান নির্বাচন কমিশনারের (সিইসি) লজ্জায় মরে যাওয়া উচিত বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক রাষ্ট্রপতি ও বিকল্পধারা বাংলাদেশের সভাপতি অধ্যাপক ডা. এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী। তিনি বলেন, রকিব উদ্দিন বলেছেন আগামী নির্বাচনে ট্যাংক লাগবে, তার এ বক্তব্যের পর তার পদত্যাগ করা উচিত। ইসিকে মেরুদন্ডহীন বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

আজ দুপুরে কাকরাইল ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স মিলনায়তনে বাংলাদেশ মুসলিমলীগের ৮ম জাতীয় কাউন্সিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। কাউন্সিল উদ্বোধন করেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্রিগেডিয়ার (অব.) আ স ম হান্নান শাহ। বাংলাদেশ মুসলিম লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আব্দুল আজিজ হাওলাদারের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন, ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আবদুল লতিফ নেজামী ও মাওলানা আব্দুর রকির অ্যাডভোকেট, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের যুগ্ম-মহাসচিব মাওলানা মুজিবুর রহমান হামিদী, ইসলামী আন্দোলনের ঢাকা মহানগর আমীর মাওলানা এ টি এম হেমায়েত উদ্দিন, বাংলাদেশ মুসলিমলীগের মহাসচিব কাজী আবুল খায়ের, মুসলিমলীগের মহাসচিব আতিকুল ইসলাম, জোবায়দা কাদের চৌধুরী প্রমুখ।

বি. চৌধুরী বলেন, রাজনৈতিকভাবে ইউপি নির্বাচন করে সরকার ঘরে ঘরে বিবাদ ছড়িয়ে দিয়েছে। ১১২ জন মানুষের মৃত্যুর দায় এ সরকার ও নির্বাচন কমিশনকেই বহন করতে হবে। দেশে আমেরিকা, যুক্তরাজ্যের আদলে সরকারের মেয়াদ চার বছর করার দাবি জানিয়ে বলেন, শেষ তিন মাস নির্দলীয় সরকারের হাতে ক্ষমতা দিয়ে দিতে হবে নির্বাচনের জন্য। তাহলে দেশে দুর্নীতি কমে আসবে বলেও মন্তব্য করেন তিনি।

সরকারকে অনির্বাচিত উল্লেখ করে তিনি বলেন, অনির্বাচিত হওয়ায় সরকার গণতান্ত্রিকভাবে দেশ পরিচালনা করছে না, কিন্তু এজন্য একদিন তাদের অনুশোচনা করতে হবে। তিনি সরকারকে গণতন্ত্রের পথে ফিরে আসার আহবান জানান।

জনগনকে আন্দোলনে নামার আহবান জানিয়ে সাবেক এ রাষ্ট্রপতি বলেন, অনেক ক্ষমা করেছেন, আর নয়, এবার প্রতিবাদ-প্রতিরোধের সময় এসেছে। সবাইকে রাজপথে নেমে আসতে হবে

এদিকে হান্নান শাহ বলেন, আমরা সব সময় ভারতের অন্যায়ের শিকার। এজন্যই একটি মুসলিম দেশ গঠনের জন্য মুসলিম লীগের প্রতিষ্ঠা হয়েছিল। তাদের আন্দোলনের কারণে পাকিস্তান এবং পরে বাংলাদেশ হয়েছে। কিন্তু এখানেও স্বাধীনতার পর ভারত বাংলাদেশের জমি নিয়ে নিয়েছে।

তিনি বলেন, ভারত কখনো সব মানুষের দেশ হতে পারেনি। তারা অসাম্প্রদায়িক দেশ নয়, তারা হিন্দুস্তান রয়ে গেছে। তারপরও সেখানে মুসলিম লীগ থেকে এমপি- মন্ত্রী হচ্ছে। কিন্তু এ দেশে মুসলিমলীগের অবস্থা সে রকম দেখা যাচ্ছে না।