মেজর জিয়ার মাজার সরানোর যে চক্রান্ত করছে হাসিনা সরকার, দেশের জনগণই এমন অন্যায় এবং চক্রান্তের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবে

0

জিসাফো ডেস্কঃ বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী বলেছেন, ‘লুই আইকানের করা সংসদ ভবনের মূল নকশা বাস্তবায়িত করার নামে মেজর জিয়ার মাজার সরানোর যে চক্রান্ত করছে হাসিনা সরকার, এটা কখনোই বাস্তবায়িত হবে না। কারণ, দেশের জনগণই এমন অন্যায় এবং চক্রান্তের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াবে।’

নয়াপল্টনে বিএনপির প্রধান কার্যালয়ে সোমবার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘সংসদ ভবনের মূল নকশায় লুই আইকানের প্রধান নকশা করা হয়েছে পাকিস্তানের আইয়ুব খানের আমলে। সেই নকশায় প্রাধান্য পেয়েছে পাকিস্তানের পতাকা। সেই বিষয়টি শেখ হাসিনা বার বার এড়িয়ে যাচ্ছেন কেন সেটা আমরা বুঝতে পারছি না। মূল নকশা বাস্তবায়ন করার জন্য ইতোমধ্যে তিন কোটি টাকার ওপরে মালামাল আনা হয়েছে এবং বিভিন্ন প্রোজেক্ট হাতে নেওয়া হয়েছে। অনেক কিছুর সাথে সাথে সংসদ ভবনের মাঝ দিয়ে মেট্রোরেল নেওয়ার পরিকল্পনা করা হয়েছে বলে শোনা যাচ্ছে। হাসিনা সরকারের সংসদ ভবনের মূল নকশা বাস্তবায়িত করার পেছনে আমরা একটাই চক্রান্তের গন্ধ পাচ্ছি সেটা হচ্ছে শহীদ জিয়ার মাজার ওখান থেকে সরানো। যা করা কখনোই সম্ভব না। আমরা জীবন দিয়ে হলেও এটা করতে দেব না।’

নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন (নাসিক)নির্বাচন সম্পর্কে রিজভী বলেন, ‘নারায়ণগঞ্জে এবার বিএনপির পক্ষ থেকে অ্যাড. সাখাওয়াত হোসেন খান নির্বাচন করবেন। তিনি একজন সংগ্রামী কর্মী। বর্তমান সরকারের অত্যাচারে জর্জরিত মানুষের পাশে দাঁড়াতে তার মতো একজন নেতা নারায়ণগঞ্জে এখন খুব দরকার।’

বিএনপির এই জ্যেষ্ঠ নেতা বলেন, ‘হাসিনা সরকার এদেশ এবং এদেশের মানুষকে কিছুই মনে করেন না। তিনি জনগণকে তার হাতের খেলনা বানিয়ে রেখেছেন।’

তিনি আরো বলেন, ‘বর্তমান সরকারের আচার আচরণই বলে দিচ্ছে তিনি (হাসিনা) বিএনপিকে ভয় পাচ্ছেন। আর তার প্রমাণ তিনি প্রতি পদে পদে দিচ্ছেন। যেমন আজ (সোমবার) সকালে কামরাঙ্গীরচর থানার স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক ফারুক হোসেনকে বিএনপির কার্যালয়ের সামনে থেকে আটক করেছে পুলিশ। এটা কোনো গণতান্ত্রিক দেশের নিয়ম হতে পারে না।’

এসময় বিএনপি নেতা রুহুল কুদ্দুস দুলু, বেলাল হোসেন, অ্যাড. সাখাওয়াত হোসেন, রুমি ফারহানা প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।