মারা গেছেন জম্মু কাশ্মীরের মুখ্যমন্ত্রী

0

ঢাকা: ভারতের জম্মু-কাশ্মীর রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মুফতি মোহাম্মদ সাইদ আর নেই। বৃহস্পতিবার সকালে দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিকেল সাইন্স সংক্ষেপে এইমস হাসপাতালে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৯ বছর। তার মেয়ে মেহবুবা মুফতি তার স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন।

গত ২৪ ডিসেম্বর জ্বর ও ঘাড়ে যন্ত্রণা নিয়ে তিনি এই হাসপাতালেই ভর্তি হয়েছিলেন। সেখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার সকালে তার মৃত্যু হয়। চিকিত্সকেরা জানিয়েছেন, একাধিক অঙ্গ বিকল হওয়ায় তার মৃত্যু হয়েছে।

মুফতির মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ইতিমধ্যে কাশ্মীরের ওই নেতাকে তিনি শেষ শ্রদ্ধা জানিয়েছেন। মরদেহের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে দিল্লি পৌঁছেছেন রাজ্যের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাও। এছাড়া ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং, পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ, কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধী তাকে শেষ দেখা দেখতে হাসপাতালে ছুটে গেছেন।

বাবার মৃত্যুর পর হাসপাতালে ছুটে এসেছেন তার মেয়ে ৫৬ বছরের মেহবুব মুফতি। ক্ষমতাসীন পিপলস ডেমোক্রেটিক পার্টির (পিডিপি) প্রেসিডেন্ট মেহবুবা মুফতি সাইদের স্থলাভিষিক্ত হবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে। এ পদের জন্য দল তাকেই মনোনীত করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে এনডিটিভি জানিয়েছে। ফলে তিনিই হচ্ছেন জম্মু-কাশ্মীর রাজ্যের প্রথম নারী মুখ্যমন্ত্রী।

বৃহস্পতিবারই দিল্লি থেকে শ্রীনগরে নিয়ে যাওয়া হবে মরহুম নেতার লাশ। তার মেয়ে মেহবুবা এবং পি ডি পি’র শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে লাশ নিয়ে শ্রীনগরে যাচ্ছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং। সমর্থক, অনুগামী, সাধারণ মানুষের শ্রদ্ধা জানানোর জন্য রাজধানী শ্রীনগরে প্রয়াত নেতার মরদেহ শায়িত থাকবে। পরে মুফতি মোহাম্মদ সাইদের গ্রামের বাড়ি দক্ষিণ কাশ্মীরের অনন্তনাগের বিজবেহারায় তাঁকে দাফন করা হবে। মরহুম এই নেতা স্ত্রী, তিন মেয়ে ও এক ছেলেকে রেখে গেছেন।