মাঝআকাশে ভেঙে পড়েছিল বিমানটি

0

ঢাকা: সিনাই অঞ্চলে পতিত রুশ বিমানটি মাঝআকাশেই বিধ্বস্ত হয়েছিল বলে দাবি করেছেন এক তদন্তকারী কর্মকর্তা। শনিবার ওই দুর্ঘটনায় বিমানের ২২৪ জন আরোহীর সবাই প্রাণ হারিয়েছেন। রোববার থেকেই তাদের মরদেহ দেশে ফিরিয়ে আনার কাজ শুরু করেছে রাশিয়া।

রাশিয়ার তদন্ত দলের প্রধান এবং ‘ইন্টারস্টেট এভিয়েশন কমিটি’র উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ভিক্টর সোরোচেনকো বলেছেন, এ-৩২১ বিমানটি সিনাইয়ের মাঝআকাশে বিধ্বস্ত হয়েছিল। আর এ কারণেই এটির ধ্বংসাবশেষ বিস্তৃর্ণ এলাক জুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে। তবে তিনি মনে করছেন, এই ঘটনা সম্পর্কে অত তাড়াতাড়ি কোনো সিদ্ধান্তে পৌঁছানো যাবে না। শনিবার লোহিত সাগরের তীরবর্তী অবকাশযাপন কেন্দ্র শার্ম আল শেখ  থেকে পিটার্সবুর্গ ফেরত আসার পথে বিধ্বস্ত হয়েছিল বিমানটি। ওই দুর্ঘটনার কারণ অনুসন্ধানে রাশিয়া ও মিসরের তদন্ত কর্মকর্তারা একযোগে কাজ করছেন।

এর আগে জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট এক টুইটার বার্তায় বিমানটিকে ভূপতিত করার দাবি করলে রাশিয়া ও মিশর তা প্রত্যাখ্যান করেছে।

এদিকে রোববার রাত থেকে নিহতদের মরদেহ কায়রো থেকে দেশে ফিরিয়ে আনার কাজ শুরু করেছে মস্কো। ওইদিন গভীর রাতে ১৬২টি মৃতদেহ নিয়ে একটি রুশ বিমানে করে সেন্ট পিটার্সবুর্গের উদ্দেশে রওয়ানা হয়েছে বলে এএফপি জানিয়েছে।

উদ্ধারকারীরা ইতিমধ্যে ১৬৮টি মৃতদেহ উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে। তারা আট বছরের একটি মেয়ে শিশুর লাশ উদ্ধার করেছে মূল বিধ্বস্ত এলাকার আট কিলোমিটার দূর থেকে।

­