ভিশন ২০৩০ এটি একটি ঐতিহাসিক রাজনৈতিক দলিল হিসেবে বাংলাদেশের ইতিহাসে থাকবে

0

জিসাফো ডেস্কঃ খালেদা জিয়া ঘোষিত ভিশন ২০৩০ না পড়েই ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতারা প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছেন বলে মনে করছেন বিএনপি নেতা মওদুদ আহমদ।

ভিশন উপস্থাপন শেষ হওয়ার সাথেই সাথেই তারা (আওয়ামী লীগ) বলল, এটা অন্তঃসারশূন্য। যারা এই কথাটা বললেন, তারাই নিজেরাই অন্তঃসারশূন্য। তাদের উচিৎ ছিল ‘ভিশন ২০৩০’ পড়ে মন্তব্য করা,” বলেছেন তিনি।

শনিবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে বাংলাদেশ নাগরিক ফোরামের উদ্যোগে ‘জাতীয় সংসদ নির্বাচন, নির্বাচনকালীন সহায়ক সরকার ও নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় একথা বলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির এই সদস্য।

গত বুধবার বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া তার ভিশন ২০৩০ প্রকাশ করেন, যাতে বিএনপি ক্ষমতায় গেলে কী কী করা হবে, তা সবিস্তারে তুলে ধরেন। তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের একে অন্তঃসারশূন্য বলে মন্তব্য করলেও অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত এর প্রশংসা করেছেন।

মওদুদ বলেন, “ভিশন ২০৩০, যেটা আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া উপস্থাপন করেছেন, আমি মনে করি এটি একটি ঐতিহাসিক রাজনৈতিক দলিল হিসেবে বাংলাদেশের ইতিহাসে থাকবে। এটি দেশের রাজনীতিতে একটি মাইলফলক।এই ভিশনটা দেওয়া হয়েছে যাতে আন্দোলন জোরদার হয়। এর মাধ্যমে আমাদের হারানো বিষয়গুলো ফিরিয়ে আনতে পারব।

প্রধানমন্ত্রী ক্ষমতার ভারসাম্যের প্রয়োজনীয়তা তুলে ধরে রাষ্ট্রপতি শাসিত এরশাদের সরকারে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পালনকারী মওদুদ বলেন, আমরা দেখেছি যে, প্রধানমন্ত্রীর একক ক্ষমতা কর্তৃত্ববাদের জন্ম দিয়েছে। এটা আমাদের অভিজ্ঞতা। শুধু এই সরকারের সময়ে নয়, আমাদের সময়েও, এই সরকার একটু বেশি করছে।

বিএনপি ক্ষমতায় গেলে প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়াই হবেন বলে আগাম আভাস দেন মওদুদ। তিনি আরও বলেন, আমরা ক্ষমতায় গেলে প্রতিহিংসার রাজনীতি করব না। আমরা বলেছি, আমরা ক্ষমতায় গেলে সংসদে পাবলিক একাউন্টস কমিটি, পাবলিক আন্ডারটেইকেন কমিটি- এই দুটি কমিটির চেয়ারম্যান বিরোধী দল থেকে নেব।

নিরপেক্ষ নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য আগামীতে একটি ‘সহায়ক সরকারের’ রূপরেখা দেওয়া হবে বলেও জানান বিএনপির নীতি-নির্ধারণী ফোরামের সদস্য মওদুদ।