ভিভিআইপিদের প্রচারাভিযানে সুযোগ: সরকার-ইসি দ্বিধা-দ্বন্দ্বে

0

ঢাকা: আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে অতিগুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের (ভিভিআইপি) প্রচারাভিযানে নামা নিয়ে দ্বিধা-দ্বন্দ্বে পড়েছে সরকার ও নির্বাচন কমিশন (ইসি)। উভয় প্রতিষ্ঠান বিষয়টি নিয়ে নিজেদের অবস্থান পরিবর্তন করে এখনো বিপরীতমুখী অবস্থান নিয়েছে। এরই মধ্যে এক দফা অনানুষ্ঠানিক বৈঠকও হয়েছে। এসব নিয়ে নতুন করে অনিশ্চয়তা তৈরি হচ্ছে।

সূত্রমতে, দলীয় ব্যানারে স্থানীয় নির্বাচনের অধ্যাদেশ হওয়ার পরে নির্বাচন কমিশন অতিগুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের প্রচারণায় অংশ নেওয়ার সুযোগ দিয়ে আচরণ বিধি তৈরি করে। কিন্তু আইন মন্ত্রণালয় থেকে বিপরীতে অবস্থান আসে। পরে স্থানীয় সরকার নির্বাচনের অধ্যাদেশ বাতিল করে আধাদলীয়ভাবে নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। এরপরে আচরণ বিধিতে ভিভিআইপিদের অংশ নেওয়ায় নিষেধাজ্ঞা দিয়ে আচরণ বিধি তৈরি করা হয়। এখন আবার সেই অবস্থানের বিপরীতে গিয়ে পৌরসভা নির্বাচনের প্রচারণায় নামতে আগ্রহী এমপিরা। লেভেল প্লে­য়িং ফিল্ডের অংশ হিসেবে এমপিরা দলীয় প্রার্থীর পক্ষে প্রচারে নামতে আইন সংশোধনেরও দাবি জানিয়েছেন। একই দাবিতে আজ ইসির সঙ্গে সাক্ষাৎ করে জোরাল দাবি জানাবেন দলের এমপিরা।

ইসি সূত্রে জানা গেছে, বিদ্যমান স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আচরণবিধি অনুযায়ী প্রচারণায় অংশ নিতে পারবেন না এমপিরা। এমপিদের কীভাবে প্রচারণায় সুযোগ দেয়া যায় তা নিয়ে গত বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক ইসি কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকও করেছেন। এমপিদের এমন দাবির সঙ্গে নীতিগতভাবে একমত হলেও আইনগত জটিলতার কারণে এই মুহূর্তে বিধি সংশোধনে রাজি নয় ইসি। সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, ক্ষমতাসীন দলের এমপিরা মনে করছেন, নতুন আচরণ বিধিতে প্রধান প্রতিপক্ষ বিএনপির চেয়ারপারসন থেকে শুরু করে সর্বস্তরের নেতারা দলীয় মেয়র প্রার্থীর পক্ষে প্রচারে নামার সুযোগ পাচ্ছেন। অন্যদিকে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদের সঙ্গে এমপিদেরও বিধি-নিষেধের আওতায় পড়ে প্রচার কাজে বিরত থাকতে হচ্ছে। বিষয়টি নিয়ে তারা সরকারের উচ্চ পর্যায়েও যোগাযোগ করেছেন। এরই ভিত্তিতে আইন মন্ত্রণালয় থেকে এমপিদের প্রচারে নামার সুযোগ দিতে গতকাল ইসিকে প্রস্তাব দেয়া হয়। এমপিদের প্রচারণায় সুযোগ দেয়া যায় কিনা তা ভেবে দেখা হচ্ছে। আইনি বিভিন্ন দিক নিয়ে আলোচনা হয়েছে; কিন্তু এখনো চূড়ান্ত কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। বিষয়টি নিয়ে সরকারের উচ্চ পর্যায়ে আরো আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। তবে কমিশনের একটি সূত্র জানিয়েছেন, শুরুতে কমিশনের পক্ষ থেকে মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীদের সঙ্গে এমপিদের প্রচারে নামার সুযোগ রাখা হয়েছিল। আইন মন্ত্রণালয়ে ভেটিংয়ে এ নিয়ে আপত্তির কারণে বাদ দেয়া হয়েছে। তফসিলের পরে এই পরিস্থিতিতে এসে আচরণ বিধি সংশোধনের কোনো সুযোগ নেই। এটা করতে গেলে নতুন তফসিল দিতে হবে।