বেগম জিয়া ও তারেকের পদে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা

0

জিসাফো ডেস্কঃ বিএনপির চেয়ারপারসন ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে  দলীয় নির্বাচন কমিশন।

সোমবার সকালে রাজধানীর নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে কমিশনের চেয়ারম্যান ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার এ তফসিল ঘোষণা করেন।

তফসিল অনুযায়ী, আগামী ১৯ মার্চ বিএনপির ষষ্ঠ জাতীয় কাউন্সিলের দিন এ দুই পদের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। তবে কাউন্সিলের ভেন্যু এখনো নির্ধারিত হয়নি।

চেয়ারপারসন ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর বয়স কমপক্ষে ৩০ (ত্রিশ) বছর এবং তাকে দলের চাঁদাদাতা সদস্য হতে হবে।

চেয়ারম্যান ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারপারসন পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী নিজে কিংবা লিখিতভাবে মনোনিত তার নির্বাচনী এজেন্টের মাধ্যমে মনোনয়নপত্র সংগ্রহ, জমাদান, প্রত্যাহার এবং ভোট গণনার সময় উপস্থিত থাকতে পারবেন।

গত ১০ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত বিএনপির স্থায়ী কমিটির সর্বশেষ বৈঠকে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকারকে চেয়ারম্যান করে নির্বাচন পরিচালনা কমিশন-২০১৬ গঠন করা হয়। তিন সদস্যবিশিষ্ট ওই কমিটিতে দলের নির্বাহী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার আমিনুল হককে সদস্য সচিব এবং ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট হারুন আল রশিদকে সদস্য করা হয়।

এদিকে, নির্বাচন পরিচালনা কমিশন ওই দুই পদে নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পাদনের জন্য দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খানকে রিটার্নিং অফিসার এবং দলের চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আবদুল মান্নানকে সহকারী রিটার্নিং অফিসার হিসেবে নিয়োগ করা হয়েছে।

ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী, আগামী ২ মার্চ বুধবার সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত নির্বাচন পরিচালনার জন্য দলের নয়াপল্টনের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে স্থাপিত অস্থায়ী অফিসে রিটানিং অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসারের নিকট থেকে দলের চেয়ারম্যান ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনের মনোনায়নপত্র সংগ্রহ করা যাবে।

৪ মার্চ শুক্রবার সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত নির্বাচন পরিচালনা কমিশনের অস্থায়ী অফিসে রিটার্নিং অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং অফিসারের কাছে মনোনয়নপত্র জমা দেয়া যাবে।

৫ মার্চ শনিবার বেলা ১১টায় কমিশনের অস্থায়ী কার্যালয়ে মনোনায়নপত্র বাছাই করা হবে। ৬ মার্চ রোববার সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত মনোনায়নপত্র প্রত্যাহার করা যাবে।

গত ২৩ জানুয়ারি বিএনপির স্থায়ী কমিটির বৈঠকে নীতি-নির্ধারকদের সর্বসম্মত সুপারিশের ভিত্তিতে দলের চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া ‘সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান’ পদে নির্বাচনের বিধান রেখে গঠনতন্ত্রের সংশোধন অনুমোদন করেন। পরবর্তীতে বিএনপির পক্ষ থেকে চিঠি দিয়ে গঠনতন্ত্র সংশোধনের এ বিষয়টি নির্বাচন কমিশনকে অবহিত করা হয়।

২০০৯ সালের ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত বিএনপির পঞ্চম জাতীয় কাউন্সিলে ‘সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান’ নামে নতুন একটি পদ সৃষ্টি করা হয়। সেখানে কাউন্সিলরদের সর্বসম্মতিক্রমে তারেক রহমান ওই পদে নির্বাচিত হন। তবে দলের গঠনতন্ত্রে এতোদিন ওই পদে ‘সরাসরি’ নির্বাচনের বিধান ছিল না।

মহাসচিবসহ বিএনপির অন্যপদগুলোতেও কেন নির্বাচন হবে না, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে ব্যারিস্টার জমিরউদ্দিন সরকার বলেন, ‘বিএনপির অন্য পদগুলোতেও কাউন্সিলের দিন নির্বাচন হবে।’

অপর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, ‘কাউন্সিল পেছানোর কোনো সম্ভাবনা নেই। আগামী ১৯ মার্চ নির্ধারিত তারিখেই বিএনপির কাউন্সিল অনুষ্ঠিত হবে।’

কাউন্সিলের ভেন্যু পাওয়া নিয়ে এক প্রশ্নের জবাবে জমিরউদ্দিন বলেন, ‘কাউন্সিল অধিবেশনে সারা দেশ থেকে কাউন্সিলররা আসবেন। বিভিন্ন দলের নেতা ও বিদেশি প্রতিনিধিরা সেখানে আসবেন। আশা করি, সরকার আমাদের কাউন্সিলে বাধা সৃষ্টি করবে না। আমরা এ ধরনের কোনো আশঙ্কাও করি না।’

সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট হারুন-আল রশিদ, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আব্দুল মান্নান, নির্বাহী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার আমিনুল হক প্রমুখ।

বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর তৃতীয় তলার নিজ কক্ষে অবস্থান করলেও তিনি সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন না।

এর আগে, সকালে বিএনপির মহাসচিবের কক্ষে এক রুদ্ধদ্বার বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে মির্জা ফখরুল, জামির উদ্দিন সরকার, নজরুল ইসলাম খান, অ্যাডভোকেট আব্দস সালাম আজাদ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। তবে ওই সময় বিএনপি কার্যালয়ে উপস্থিত থাকলেও দলের দপ্তরের দায়িত্বপ্রাপ্ত যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী আহমেদ ওই বৈঠক ও বৈঠক পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে হাজির ছিলেন না।

এদিকে, সংবাদ সম্মেলনের আগে মির্জা ফখরুল ইসলাম নিজ রুম থেকে বের হয়ে সাংবাদিকদের জানান, আজকের সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির চেয়ারপারসন ও সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান পদে নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হবে। তাই নির্বাচন পরিচালনা কমিশন সংক্রান্ত দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতারাই কেবল সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত থাকবেন।