বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে ছাত্রলীগের ভয়ে মসজিদে নামাজ পড়েন না অনেকেই।

0

অনেকেই জাফর ইকবালকে দোষ দিচ্ছেন। কিন্তু আমি জাফরকে দোষ দিতে চাই না। কারণ –

১) মুসলিমদের ধর্মীয় স্বাধীনতা অনেক আগেই বাংলাদেশ থেকে হারিয়ে গিয়েছে। নামাজ পড়ার অপরাধে এর আগে অসংখ্য ছাত্রকে জেলে পাঠানো হয়েছে, এবার-ই প্রথম না, এবং জাফর ইকবাল এ কাজে নতুন কেউ নন। বিশ্ববিদ্যালয়ের হলে যারা ছিলেন, তারা জানেন, অনেকেই ছাত্রলীগের ভয়ে মসজিদে নামাজ পড়েন না।

২) জাফর আমাদের রাজনীতির ফলাফল। আমাদের চতুর্দিকে হাজার হাজার জাফর ইকবাল ছড়িয়ে আছে। অর্থাৎ, মুসলিমদের ধর্মীয় স্বাধীনতা দিতে নারাজ আমাদের সমাজ। বাংলাদেশের বর্তমান সামাজিক অবস্থা এমন হয়ে দাঁড়িয়েছে যে, কেউ নিজেকে মুসলিম বললে হীনমন্যতায় ভুগতে হয়। কিন্তু, কেউ নিজেকে নাস্তিক, জাফর বা হিন্দু বললে বুক ফুলিয়ে চলতে পারেন।

৩) বাংলাদেশে এখন যে অবস্থা চলছে, ১৯৯৫ সালের দিকে তুরস্কেও এমন অবস্থা ছিলো। এরদোয়ান ইস্তানবুলে মেয়র থাকাকালীন একবার তাঁর এক বক্তব্যে বলেছিলেন, আমি মুসলিম। এটা বলার অপরাধে তাকে টক-শো তে হাজির হতে হয়েছিলো, এবং নিজেকে নির্দোষ প্রমাণ করতে হয়েছিলো। তুরস্কে এই অবস্থার পরিবর্তন কেবল রাজনীতির মাধ্যমেই সম্ভব হয়েছিলো, অথচ আমরা রাজনীতিকে ঘৃণা করি।

তাই, কেবল জাফরকে গালাগালি করে লাভ নেই, রাজনৈতিক ক্ষমতা পরিবর্তন হওয়া ছাড়া মুসলিমরা তাদের ধর্মীয় স্বাধীনতা কখনোই ফিরে পাবে না।

সংগ্রহীত জোবায়ের আল মাহমুদ ।