বাস ভাড়া বাড়ছে আগামী সপ্তাহে

0

রূপান্তরিত প্রাকৃতিক গ্যাসের (সিএনজি) নতুন দাম মঙ্গলবার থেকে কার্যকর হলেও গণপরিবহনের ভাড়া বাড়েনি। তবে সরকার পুনর্নির্ধারণ করে দেওয়ার পর আগামী সপ্তাহ থেকে বাড়বে বাস ভাড়া।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষের (বিআরটিএ) ভাড়া নির্ধারণ কমিটি (কস্টিং কমিটি) গ্যাসের দাম বৃদ্ধিকে বিবেচনায় নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত ঘোষণার আগে ভাড়া বৃদ্ধি না করতে বাস মালিকদের নোটিশ দিয়েছে পরিবহণ মালিক সমিতি।

কস্টিং কমিটির সিদ্ধান্তের আগে যাত্রীদের কাছ থেকে বাড়তি ভাড়া আদায় করা হলে সংশ্লিষ্ট বাস শ্রমিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে সড়ক পরিবহণ মালিক সমিতি।

বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ সমিতির মহাসচিব খন্দকার এনায়েত উল্যাহ মঙ্গলবার দুপুরে জানান, সরকার থেকে ভাড়া পুন:নির্ধারণ করে দেওয়ার পরই বাস ভাড়া বাড়ানো হবে। গত রোববার সড়ক বিভাগের সচিব এবং বিআরটিএ-এর চেয়ারম্যানের কাছে ভাড়া পুন:নির্ধারণের জন্য চিঠি দেওয়া হয়েছে।

খন্দকার এনায়েত উল্যাহ বলেন, বিআরটিএ-এর ভাড়া নির্ধারণ কমিটি (কস্টিং কমিটি) গ্যাসের দাম বৃদ্ধিকে বিবেচনায় নিয়ে ভাড়া সমন্বয় করবে। এরপরই কার্যকর করা হবে নতুন ভাড়া। আগামী সপ্তাহ থেকেই বাড়তে পারে ভাড়া। কস্টিং কমিটির চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত ঘোষণার আগে ভাড়া বৃদ্ধি না করতে মালিকদের নোটিশ দেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি।

গত ২৭ আগস্ট বাংলাদেশ এনার্জি রেগুলেটরি কমিশন (বিইআরসি) গ্যাস ও বিদ্যুতের দাম ঘোষণা দেয়। ঘোষণা অনুযায়ী, গ্রাহকপর্যায়ে গ্যাসের দাম ২৬ দশমিক ২৯ শতাংশ এবং বিদ্যুতের দাম ২ দশমিক ৯৩ শতাংশ বাড়ানো হয়েছে। আর প্রতি ঘনমিটার সিএনজির বর্তমান দাম ৩০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ৩৫ করা হয়েছে। যা ১ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার থেকে  কার্যকর হয়েছে।

গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধির পর ২০১১ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর ঢাকা ও চট্টগ্রামের অভ্যন্তরীণ রুটে চলাচলকারী বাসের ভাড়া বৃদ্ধি করা হয়। তখন কিলোমিটারপ্রতি এক টাকা ৬০ পয়সা বাস ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছিল।  সরকার ২০১৩ সালের ৩ জানুয়ারি জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি করলে ওই বছরের ২০ জানুয়ারি দূরপাল্লার বাসের ভাড়া কিলোমিটার প্রতি ১০ পয়সা বৃদ্ধি করে এক টাকা ৪৫ পয়সা করা হয়।

গত শনিবার রাজধানীর বিএমএ ভবনে এক অনুষ্ঠানে সড়ক পরিবহণ ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘গ্যাসের দামের সঙ্গে বাস ভাড়া সমন্বয় করা হবে। বিআরটিএ-এর কস্টিং কমিটি ভাড়া নির্ধারণ করে। পরিবহন মালিকরাও কমিটির সদস্য।’

এদিকে, সড়ক ও জনপথ অধিপ্তরের (সওজ) আওতাধীন টোলের হার বেড়েছে। আর দূরপাল্লার ৩৮০টি রুটে বাস ভাড়া বৃদ্ধির প্রক্রিয়া শুরু করেছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহণ কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)।
মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, বর্তমানে রাজধানীর গাবতলী থেকে ৬১টি, মহাখালী থেকে ৬০টি এবং সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল থেকে ৮৭টি গন্তব্যে বাস চলাচল করে। এ ছাড়া আন্তঃজেলা বাস সার্ভিস মিলে মোট রুটের সংখ্যা ৩৮০। সব রুটে টোলজনিত বাস ভাড়া বৃদ্ধি পেতে পারে।

টোল নীতিমালা-২০১৪ কার্যকরের পর ভাড়া পুনঃনির্ধারণ করতে গত ২৬ জুলাই বিআরটিএ-এর কাছে চিঠি পাঠিয়েছে সড়ক পরিবহণ ও সেতু মন্ত্রণালয়। এর আগে টোল বাড়ানোর পর পরিবহণ নেতাদের সঙ্গে গত ১০ জুন বৈঠক করে মন্ত্রণালয়।

তবে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা বলছেন, ভাড়া বাড়ানোর ক্ষেত্রে ব্যয় বিশ্লেষণের ২৬টি বিষয় আছে। বাস ভাড়া নির্ধারণে ২৬টি উপ-খাতের ব্যয় বিশ্লেষণ করা হয়। এর একটি টোল। আগের ভাড়া নির্ধারিত ছিল টোলের পূর্ব হার অনুযায়ী। নতুন টোল নীতি অনুযায়ী ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের মেঘনা ও গোমতী সেতুর টোল ২৫ ভাগ বেড়েছে। ভাড়া বাড়ানোর সময়ও এ হার যুক্ত করা হচ্ছে।