বাসরঘরে যাওয়ার আগে বর নিখোঁজ অতঃপর..

0

কে এম সবুজঃ সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে বাসর করা হলো না নববিবাহিত যুবকের। হাত-পা মুখ বাঁধা অবস্থায় মরদেহ উদ্ধার করেছেন স্বজন ও পুলিশ। নিহত নববিবাহিত স্বামীর নাম সোয়েব মিয়া (৩১)। তিনি উপজেলার বালিজুড়ি ইউনিয়নের বালিজুড়ি পশ্চিমপাড়া গ্রামের আবদুস শহীদ ওরফে শুকুর মিয়ার ছেলে। মঙ্গলবার বাড়ির পেছনে মরা নদী থেকে জাল দিয়ে তার মরদেহ উদ্ধার করে স্বজন ও পুলিশ। গত সোমবার রাত ছিল সোয়েব মিয়ার বাসর রাত। কিন্তু তার আর বাসর করা হলো না। পুলিশ ও পরিবার সূত্রে জানা যায়, গত রোববার বালিজুড়ি গ্রামের আব্দুনুরের মেয়ের সঙ্গে একই গ্রামের সোয়েব মিয়ার বিয়ে হয়। সোমবার ছিল তার বৌভাত। সোমবার মধ্যরাত থেকে সকাল পর্যন্ত বাড়িতে সোয়েব মিয়াকে না পেয়ে বাড়ির পেছনে মরা নদীর ঘাটে তার স্যান্ডেল দেখতে পায় স্বজনরা। ঘোসল করার ঘাটে স্যান্ডেল দেখতে পেয়ে নদীতে জাল ফেলে অনেক খোঁজাখুঁজির পর পানিতে ডুবন্ত অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করে স্বজন ও পুলিশ। মরদেহ উদ্ধারের সময় সোয়েব মিয়ার হাত-পা মুখ রশি দিয়ে বাঁধা ছিল। এমন জঘন্য ঘটনায় এলাকাজুড়ে আতঙ্ক দেখা দিয়েছে। স্থানীয় অনেকেই মরদেহ দেখে বলেছেন এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে তাহিরপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) নন্দন কান্তি ধর বলেন, মরা নদী থেকে ডুবন্ত অবস্থায় মরদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ড বলে ধারণা করা হচ্ছে।