বাংলাদেশ সরকার এবং বিচার বিভাগ মুখমুখি -‘আপত্তিজনক মন্তব্য’ নিয়ে শীর্ষ আদালতের উপর আইনমন্ত্রীর বিস্ফোরন-“দ্য হিন্দু”

0

১০ই আগস্ট ২০১৭ তারিখে ভারতীয় ইংরেজি দৈনিক পত্রিকা “দ্য হিন্দু”র আন্তর্জাতিক পাতার প্রধান খবর-

It’s Government Versus Judiciary In Bangladesh
মূল খবর: ভারতীয় ইংরেজি দৈনিক পত্রিকা “দ্য হিন্দু” অনুবাদক: “অবরুদ্ধ গণতন্ত্র”

সংবিধানের ১৬তম সংশোধনী(যা সুপ্রিম কোর্টের বিচারকদের অপসারণের জন্য সংসদকে ক্ষমতা দেয়) বাতিল করার জন্য বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্টের সিদ্ধান্তে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের কাছ থেকে শক্তিশালী সমালোচনা করা হয়েছে।
বৃহস্পতিবার আদালতের লিখিত রায় ঘোষণার পরপরই আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্যদের পাশাপাশি দেশের আইন কমিশনের চেয়ারম্যানও এর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে বিবৃতি দেন।
গত বৃহস্পতিবার সুপ্রিম কোর্টের রায় সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশ হবার পর আইন ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক সাংবাদিকদের জানান, রায়ের মাধ্যমে সরকারকে “ক্ষুব্ধ” করা হয়েছে এবং শাসকদল এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করার বিষয়েও বিবেচনা করছে।
‘ক্ষমতার অপব্যবহার’’
৭৯৯ পৃষ্ঠার রায়ের মধ্যে প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহা সামরিক শাসন, নির্বাচন কমিশন, দুর্নীতি, শাসন এবং বিচার বিভাগের স্বাধীনতার মত বিষয়গুলির উপর আলোকপাত করেন।
মিঃ হক বলেন “প্রধান বিচারপতি তার আপত্তিকর মন্তব্যের মাধ্যমে সংসদকে অমান্য করেছেন”, আমি বিশ্বাস করি রাজনৈতিক বিষয় নিয়ে আদালতের কিছুই করার নেই। তার বিবৃতি বিরক্ত করছে। তবে তিনি আরও বলেন, “প্রধান বিচারপতির কার্যালয় একটি সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান এর মর্যাদা রক্ষা করা আমাদের দায়িত্ব।”
প্রধান বিচারপতির রায়ের একটি পর্যবেক্ষণের ভিত্তিতে, “একটি দেশের স্বাধীনতা অর্জনের কৃতিত্ব কোন একটি ব্যক্তির হতে পারে না”- যা দেশের প্রতিষ্ঠাতা পিতা শেখ মুজিবুর রহমান এর অবদানের প্রতি একটি তির্যক রেফারেন্স বলে মনে করছেন বাংলাদেশের শাষকদল আওয়া্মীলিগ।
আইনমন্ত্রী বলেন- “স্বাধীনতার পর ৪৭ বছর পার হয়ে এসেও আবার সত্যকে পুনর্ব্যক্ত করতে হচ্ছে, এটা সত্যিই আমাদের জন্য বেদনাদায়ক।”
বিচারক ‘প্রজাতন্ত্র
প্রধান বিচারপতির কিছু পর্যবেক্ষণের পিছনের “উদ্দেশ্য” সম্পর্কে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বেশ কয়েকজন সংসদ সদস্যও। সাবেক প্রধান বিচারপতি খায়রুল হক বলেন, সংবিধান বলে বাংলাদেশ গণ-প্রজাতন্ত্র, “কিন্তু এই রায়ের পর মনে হচ্ছে বাংলাদেশ বিচারক-প্রজাতন্ত্র হতে চলেছে।”
সম্প্রতি একটি মিডিয়া ব্রিফিঙে সাবেক বিচারপতি হক বলেন- এমনকি আইন কমিশনের চেয়ারম্যানও রায়টিকে “ভুল ব্যাখ্যাকৃত, অপ্রাসঙ্গিক এবং অপূর্ণাঙ্গ” একটি রায় হিসাবে অবিহিত করেছেন এবং বলেছেন কেসটির প্রধান প্রসঙ্গটিই সুপ্রিম কোর্ট তার পর্যবেক্ষণে এড়িয়ে গেছেন।
তিনি বলেন- ” প্রধান বিচারপতি যদি বর্তমান সংসদকে অপরিণত বলেন, তবে অ-সংসদীয় ভাষায় সংসদ সম্পর্কে দেয়া এই রায়-যা সংসদ ও সদস্যদের জন্য অত্যন্ত অবমাননাকর সেই রায়টি দেখে আমাকেও সুপ্রিম কোর্টের বিচারকদেরকে অপরিণতই বলতে হয়।”
মূল খবর: ভারতীয় ইংরেজি দৈনিক পত্রিকা “দ্য হিন্দু”
অনুবাদক: “অবরুদ্ধ গণতন্ত্র”
লিংক: http://www.thehindu.com/news/international/its-government-versus-judiciary-in-bangladesh/article19466584.ece