বাংলাদেশে দুর্নীতি এখন লাগামছাড়া-মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

0

পদ্মা সেতু প্রকল্পে কানাডার আদালতের রায়ের প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে সোমবার এই বক্তব‌্য আসে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের কাছ থেকে।কয়েক বছর আগে বিশ্ব ব‌্যাংক পদ্মা প্রকল্প নিয়ে অভিযোগ তুললে তাকে ‘লাগামহীন দুর্নীতি’র উদাহরণ হিসেবে তুলে ধরে আসছিলেন বিএনপির নেতারা।

গত শুক্রবার কানাডার আদালত রায়ে দুর্নীতির ওই অভিযোগকে গালগল্প বলে উড়িয়ে দেয়। প্রকল্পে কানাডীয় একটি কোম্পানিকে পরামর্শকের কাজ পাইয়ে দিতে ঘুষ লেনদেনের ষড়যন্ত্র হয়েছিল বলে ওই মামলায় অভিযোগ করা হয়েছিল।ওই রায়ের পর আওয়ামী লীগের নেতারা বিএনপিসহ যারা তখন সমালোচনা মুখর হয়েছিলেস, তাদের ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানান।

নয়া পল্টনে দলীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ নিয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নে ফখরুল বলেন, “বিএনপিকে ক্ষমা চাইতে হবে কেন? বিশ্ব ব্যাংক ওই অভিযোগ নিয়ে এসেছে, বিশ্ব ব্যাংক চুক্তি বাতিল করে দিয়েছে।

“একটা দায়িত্বশীল রাজনৈতিক দল হিসেবে আমাদের দায়িত্ব কী চুপ করে বসে থাকা? অবশ্যই আমরা রিঅ্যাক্ট করেছি এবং সেই রিঅ্যাক্ট কী করেছি; আমরা বলেছি যে, দুর্নীতি হচ্ছে।”

“আর দুর্নীতি শুধু পদ্মা সেতুতে হচ্ছে না, সারা বাংলাদেশের দুর্নীতির লহরী বয়ে গেছে। আমরা প্রতিটি ক্ষেত্রে ক্ষেত্রে দেখছি, দুর্নীতির মানে শেষ সীমায় পৌঁছে গেছে এখন। লাগামছাড়া দুর্নীতি চলছে,” বলেন বিএনপি মহাসচিব।

দুর্নীতির ক্ষেত্র তুলে ধরতে গিয়ে তিনি বলেন, “ব্যাংক লুট করে নেওয়া হচ্ছে, ওভারব্রিজ খেয়ে ফেলা হচ্ছে, বাংলাদেশ ব্যাংক খেয়ে ফেলা হচ্ছে, আপনার স্টক মার্কেট পুরোপুরি নিয়ে নেওয়া হচ্ছে। কোনটা বাকি আছে?

“পত্রিকাগুলোতে বেরিয়েছে প্রজেক্টগুলোতে কী হারে দুর্নীতি হচ্ছে। এটা আমাদের কথা না। কিছুদিন আগে বাংলাদেশ বিমানে কী হয়েছে? ওয়াটার ডেভেলপমেন্ট বোর্ড ও পিডিবিতে কী হচ্ছে, কুইক রেন্টাল পাওয়ার প্ল্যান্টের নামে কী হচ্ছে? কোথায় নেই দুর্নীতি?”

বিশ্ব ব‌্যাংককে বাদ দিয়ে নিজস্ব অর্থায়নে এখন যে পদ্মা সেতুর নির্মাণ চলছে, সেখানে দুর্নীতি হচ্ছে বলে কি আপনি মনে করেন- প্রশ্ন করা হলে বিএনপি মহাসচিব বলেন, “এখন সেখানে কী হচ্ছে, তা একমাত্র আল্লাহই বলতে পারবেন, আর কেউ বলতে পারবে না।

“বিশ্ব ব্যাংক কিন্তু তার অবস্থান থেকে সরে আসেনি। দুর্নীতি হয়নি, এটা কিন্তু তারা বলেনি। দুর্নীতি হয়েছে- এই অবস্থান থেকে বিশ্ব ব্যাংক সরে আসেনি।”

কানাডার আদালতের রায়ের বিষয়ে ফখরুল বলেন, “এটা কানাডার বিচার বিভাগের ব্যাপার, তাদের ব্যাপার।”