বাংলাদেশে গণতন্ত্র এবং বাকস্বাধীনতা ‘ধসে পড়েছে :ব্রিটিশ এমপি ড্যানজুক

0
জিসাফো ডেস্কঃ লন্ডনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবস্থানরত তাজ হোটেলের সামনে গতকালও দ্বিতীয় দিনের মতো ২০ দলীয় জোটের নেতাকর্মীদের বিক্ষোভ অব্যাহত ছিল।

এদিকে প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের কাছে ব্রিটিশ সংসদ সায়মন ড্যানজুক অভিযোগ করে বলেছেন, বাংলাদেশে গণতন্ত্র এবং বাকস্বাধীনতা ‘ধসে পড়েছে।

সোমবারও লন্ডনে শেখ হাসিনার অবস্থানরত তাজ হোটেলের সামনে দ্বিতীয় দিনের মতো তীব্র বিক্ষোভ অব্যাহত ছিল। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার লন্ডন সফরকে কেন্দ্র করে এই বিক্ষোভ করেছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের নেতা কর্মীরা। নির্দলীয়, নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে জাতীয় নির্বাচন, বিরোধী রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের দমন-পীড়নসহ গুম-খুনের প্রতিবাদে তারা এ বিক্ষোভ করে।

বিক্ষোভ কর্মসূচি প্রসঙ্গে যুক্তরাজ্য বিএনপির সভাপতি এম এ মালেক বলেন, ‘বাংলাদেশের অবৈধ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে যে কোনো মূল্যে প্রতিহত করা হবে। অবিলম্বে হাসিনাকে পদত্যাগ করে জাতীয় নির্বাচন দিতে হাসিনাকে বাধ্য করা হবে। শেখ হাসিনার লুটপাট আর স্বৈরশাসনের বিরুদ্ধে আমাদের এই গণতান্ত্রিক প্রতিবাদ ব্রিটেনে অব্যাহত থাকবে।’ যেখানেই হাসিনা সেখানেই প্রতিরোধ এই মর্মে শপথ নিয়ে কর্মসূচি সফল করা হবে বলে উল্লেখ করেন তিনি। শেখ হাসিনা যতদিন এখানে অবস্থান করবেন, প্রতিদিন এই হোটেলের সামনে ২০ দলীয় জোটের নেতা কর্মীরা বিক্ষোভ প্রদর্শন করবে।

যুক্তরাজ্য বিএনপির বিক্ষোভের প্রতি সমর্থন জানিয়ে মি: ড্যানজুক এক বিবৃতিতে সিরিয়ার উদাহরণ টেনে বলেন, বাংলাদেশ ‘ব্যর্থ রাষ্ট্রে’ পরিণত হলে সেটা ব্রিটেনের জন্য উদ্বেগের কারণ হবে।

তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশে সংঘাত যদি বাড়তে থাকে তাহলে অনেক বেশি মানুষ নিরাপত্তার সন্ধানে সীমান্ত অতিক্রম করবে। আমি বলবো, অনেক বাংলাদেশি উদ্বাস্তু এদেশে আসতে পারে এবং সেই পরিস্থিতি সামাল দেয়া ব্রিটেনের জন্য কঠিন হবে’।

যুক্তরাজ্য বিএনপি সাধারণ সম্পাদক কয়সর এম আহমেদ বলেন, ‘৫ জানুয়ারির অবৈধ নির্বাচনের মাধ্যমে গণতন্ত্রের কবর রচনা করে তিনি দেশে বাকশাল কায়েম করেছেন, তাই আমরা তাকে ব্রিটেনে স্বাগত জানাতে পারি না।’

বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের উদ্যোগে ওয়েস্ট মিনিস্টারের তাজ হোটেলের সামনে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে ইউকে বিএনপি’র সভাপতি এম এ মালেকের সভাপতিত্বে আরো বক্তব্য রাখেন যুক্তরাজ্য বিএনপির নেতা আব্দুল হামিদ চৌধুরী, আবুল কালাম আজাদ, লুৎফর রহমান, আকতার হোসেন, গোলাম রব্বানী, ফরিদ উদ্দিন, শহিদুল ইসলাম, তাজ উদ্দিন, কামাল উদ্দিন, শামসুর রহমান প্রমুখ।

এদিকে ব্রিটিশ সংসদের সদস্য সায়মন ড্যানজুক বাংলাদেশের বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে সফররত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে উদ্বেগ প্রকাশ করার জন্য প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরনের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। ব্রিটিশ সংসদে বাংলাদেশ সংক্রান্ত সর্বদলীয় কমিটির সহ-সভাপতি সায়মন ড্যানজুক অভিযোগ করেছেন, যে বাংলাদেশে গণতন্ত্র এবং বাক স্বাধীনতা ধসে পড়েছে।