বগুড়ায় মহিলা কলেজের হোস্টেল দখলে নিয়েছে ছাত্রলীগ

0

জিসাফো ডেস্কঃ বগুড়া সরকারি মজিবুর রহমান মহিলা কলেজ হোস্টেলের তালা ভেঙ্গে নিয়ন্ত্রণে নিয়েছে ছাত্রলীগ। শনিবার বিকেলে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতির নেতৃত্বে কক্ষের দখল নেয়া হয়। এ ঘটনায় মহিলা কলেজ ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে চাপা উত্তেজনা বিরাজ করছে।

জানা গেছে, কলেজ শাখার সভানেত্রী আঞ্জুমান আকতার আয়না ও সাধারণ সম্পাদিকা রত্না সরকারের মধ্যে দীর্ঘদিন যাবৎ বিরোধ চলে আসছিল। সভানেত্রীর কক্ষ থেকে মালামাল চুরির ঘটনাকে কেন্দ্র করে গত বছরের ১৯ নভেম্বর সন্ধ্যায় দুই গ্রুপের মধ্যে হাতাহাতি হয়।

একপর্যায় সাধারণ সম্পাদিকা গ্রুপের কর্মীরা সভানেত্রী গ্রুপের কর্মী মোস্তাকিয়া আকতারকে দেশিয় অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে। এ ঘটনার পর কলেজ কর্তৃপক্ষ সভানেত্রী ও সাধারণ সম্পাদিকাসহ উভয়গ্রুপের ছয়জনকে কলেজ হোস্টেল থেকে বহিষ্কার করে। এরপর তাদের কক্ষ দুইটিতে কলেজ কর্তৃপক্ষ তালা দিয়ে রাখে। এরপর থেকেই হোস্টেল থেকে বহিষ্কৃত ছয়জনই ক্যাম্পাসের বাহিরে অবস্থান করতো।

দুপুরে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নাঈমুর রাজ্জাক তিতাসের নেতৃত্বে ছাত্রলীগের একদল নেতাকর্মী কলেজে গিয়ে হোস্টেলের ৪০৭নং কক্ষে কলেজ কর্তৃপক্ষের ঝুলানো তালা ভেঙ্গে হোস্টেল থেকে বহিষ্কৃত নেত্রী রত্না সরকার, তার সহযোগি তোমানিয়া আফরিন তিমু এবং রোকেয়া সরকার তিশাকে কক্ষের দখল বুঝিয়ে দেয়। এ নিয়ে সভানেত্রী গ্রুপের মধ্যে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে।

এ ব্যাপারে কলেজ শাখা ছাত্রলীগের সভানেত্রী আঞ্জুমান আকতার আয়না জানান, হোস্টেল থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কৃত নেত্রী জোরপূর্বক কক্ষের তালা ভেঙ্গে দখল নিয়েছে। হোস্টেল কর্তৃপক্ষ তাকে ছাড়াও তার সমর্থক মাকসুদা আকতার এবং মোস্তাকিয়া আকতারকে হোস্টেল থেকে সাময়িক বহিষ্কার করেছিল।

জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি নাঈমুর রাজ্জাক তিতাস জানান, দুই পক্ষই হোস্টেলের বাহিরে অবস্থান করতো বিষয়টি সমাধানের জন্য হোস্টেল সুপারকে একাধিকবার অনুরোধ করা হয়েছে। তিনি কোনো পদক্ষেপ না নেয়ায় আমি দুই পক্ষকেই হোস্টেলে অবস্থান নিতে বলেছি। আমার আহ্বানে সাধারণ সম্পাদিকা হোস্টেলে ঢুকলেও সভানেত্রী আসেনি।

এ ব্যাপারে সরকারি মজিবুর রহমান মহিলা কলেজের হোস্টেল সুপার নাসিমা আকতার জাহানের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলে তিনি ফোন রিসিভ করেননি।