প্রার্থী মনোনয়নে ক্ষমতাহীন তৃণমূল নেতারা

0

ঢাকা: প্রথমবারের মতো পৌর মেয়র পদে প্রার্থী মনোনয়নে কেন্দ্রের পাশাপাশি স্থানীয় নেতাদের প্রত্যয়নের সুযোগ রাখা হলেও কোনো দল তৃণমূলের কোনো নেতাকে এ ক্ষমতা দেয়নি।

নিবন্ধিত ৪০টি দলের মধ্যে ১৯টি দল ইতোমধ্যে নির্বাচন কমিশনে দলের ক্ষমতাপ্রাপ্ত ব্যক্তির তালিকা দিয়েছে। এর মধ্যে সব দলে সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক বা সমপদাধিকারী কেন্দ্রীয় নেতাদের দলের একক প্রার্থীকে প্রত্যয়নের ক্ষমতা দেয়া হয়েছে।

সংশোধিত পৌরবিধি অনুযায়ী, এই তিন কেন্দ্রীয় নেতার বাইরে ক্ষমতাপ্রাপ্ত ব্যক্তির তালিকা তফসিল ঘোষণার ৫ দিনের মধ্যে নির্বাচন কমিশন ও রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে পাঠানোর কথা রয়েছে।

এ বিষয়ে ইসির একাধিক কর্মকর্তা বলেন, মনে হচ্ছে, রাজনৈতিক দলগুলো বিধি ভালো করে পড়েনি, নতুবা কেন্দ্রীয় নেতার বাইরে জেলা, মহানগর, উপজেলা, পৌরসভার মতো তৃণমূলের কোনো নেতাকে ক্ষমতা দিতে চায়নি।

এদিকে দলে গ্রুপিংয়ের সুযোগ না থাকার জন্য তৃণমূলকে মনোনয়ন প্রত্যয়নের ক্ষমতা দেয়া হয়নি বলে জানিয়েছে রাজনৈতিক দলগুলোর নেতারা।

বিদ্যমান বিধি অনুযায়ী, সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক বা সমপদাধিকারী ব্যক্তি ৩ ডিসেম্বর পর্যন্ত প্রত্যয়নের তালিকা রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মনোনয়নপত্রের সঙ্গে জমা দিলেই হবে।

তবে প্রথমবারের মতো নতুন বিধি হওয়ায় মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার আগেই কয়টি দল নির্বাচনে যাচ্ছে তার আভাস মিলেছে। গত শনিবার দলের ক্ষমতাপ্রাপ্ত ব্যক্তিদের তালিকা দেয়ার শেষ দিন ছিল। নির্ধারিত সময়ে ১২টি দল তালিকা দিয়েছে।

রোববার আরও ৭টি দল তালিকা দিয়েছে। দলগুলো হলো: বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি), বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি, আওয়ামী লীগ, জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ), জাতীয় পার্টি (জাপা), জাতীয় পার্টি( জেপি), বিকল্পধারা বাংলাদেশ, এনপিপি, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টি, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ, পিডিপি, বিএনএফ, লিবারেল ডেমোক্রেটিক পার্টি (এলডিপি), বাংলাদেশ সমাজতান্ত্রিক দল (বাসদ), বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি (সিপিবি), বাংলাদেশ তরিকত ফেডারেশন (বিটিএফ), গণফোরাম ও জাকের পার্টি।

এর মধ্যে আওয়ামী লীগে সভানেত্রী শেখ হাসিনা, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ, বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব মো. শাহজাহানকে ক্ষমতাপ্রাপ্ত ব্যক্তি মনোনীত করে ইসির কাছে চিঠি দিয়েছে। অন্যসব দলও সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক ও সমপদাধিকারীর বাইরে ক্ষমতা দেয়নি।

ইসির একজন কর্মকর্তা বলেন, আগামী ৩ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র দাখিলের পর কয়টি দল ভোটে থাকল তা নিশ্চিত হবে। তবে ১৩ ডিসেম্বর প্রার্থিতা প্রত্যাহারের পরই চূড়ান্ত হবে কারা ভোটে থাকবে।