প্রশ্নবিদ্ধ বায়োমেট্রিক পদ্ধতির অপব্যবহার : গ্রাহকের আঙ্গুলের ছাপ জালিয়াতি করে সিম বিক্রি

0

জিসাফো ডেস্কঃ কার্যক্রম চলাকালীন সময়েই প্রশ্নবিদ্ধ বায়োমেট্রিক পদ্ধতি। সাভারের আশুলিয়ায় মুঠোফোনের সিম পুনঃনিবন্ধনে নেয়া আঙ্গুলের ছাপ অপব্যবহারের অভিযোগ উঠেছে এক নিবন্ধনকারীর বিরুদ্ধে।

প্রতারণার মাধ্যমে দোকানের অবিক্রিত সকল সিম পুনঃনিবন্ধন করতে আসা ব্যক্তিদের নামে রেজিস্ট্রেশন করিয়ে নেন তিনি।

মুঠোফোনের ক্ষুদে বার্তায় বিষয়টি গ্রাহকরা অবহিত হবার পর গা ঢাকা দিয়েছে ওই নিবন্ধনকারী।

এলাকাবাসী জানায়, আশুলিয়ার খেজুরটেক বাজার এলাকার আকলিমা টেলিকমের মালিক ফারুক আহমেদের কাছে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে বাংলালিংক’র সিম রি-রেজিস্ট্রেশন করতে যান অর্ধশতাধিক গ্রাহক।

গ্রাহকদের অভিযোগ, ভোটার আইডি কার্ডের সঙ্গে থাকা আঙ্গুলের ছাপের সঙ্গে মিলছে না এই কথা বলে প্রত্যেকের ছয় থেকে সাত বার করে আঙ্গুলের ছাপ নেন ফারুক। এভাবে গ্রাহকদের নামে সিম নিবন্ধন করে তা অন্যের কাছে বিক্রি করেন ফারুক। এর মধ্যে একজনের নামেই নিবন্ধন করা হয় ৩ টি সিম কার্ড।

ওই গ্রাহক ক্ষুদে বার্তার মাধ্যমে নিশ্চিত হয়ে দ্রুত থানায় অভিযোগ করেন।

তবে বিষয়টি টের পেয়ে দোকানে তালা ঝুলিয়ে দিয়েই গা ঢাকা দেয় ফারুক নামের ওই সিম নিবন্ধনকারী।

হোসেন নামের একজন ভূক্তভোগী জানান, তার নিজের নামে প্রতারণামূলকভাবে ৪ টি সিম রেজিস্ট্রেশন করা হয়েছে।

এসব সিম অপব্যবহারের মাধ্যমে যে কোন মুহূর্তে তাকে বিপদে পড়তে হতে পারে বলেও আশঙ্কা তার।

প্রতিবাদে এলাকাবাসী আজ সকালে ওই যুবকের বাড়ি ঘেরাও করতে গেলে ওই নিবন্ধনকারীর পক্ষে সন্ত্রাসীরা পাঁচ প্রতিবাদকারীকে পিটিয়ে আহত করে। পরে তাদেরকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।