পার্বত্য জেলায় পাহাড় ধসে ২ কর্মকর্তা ৬ সেনা সদস্যসহ ৩৩ জন নিহত

0

জিসাফো ডেস্কঃ গত কয়েক দিনের টানা বর্ষণে পার্বত্য জেলা রাঙামাটি, বান্দরবান ও চট্টগ্রামে পাহাড় ধসে ৩৩ জন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে রাঙামাটিতে ১৪ জন, বান্দরবানে ৭ জন এবং চট্টগ্রামে ১২ জন মারা গেছেন। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। কারণ এখনও মাটির নিচে অনেকে চাপা পড়ে আছেন। সোমবার মধ্য রাতে থেকে আজ মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত প্রাণহানির এ ঘটনা ঘটেছে।উদ্ধার অভিযানে গিয়ে ২ কর্মকর্তাসহ ৬ সেনা সদস্য নিহত হয়েছেন। এঘটনায় আহত ৮ সেনা সদস্যদের মধ্যে ৫ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। নিখোঁজ রয়েছেন আরও ২ জন।নিহতদের মধ্যে ২ সেনা কর্মকর্তার নাম জানা গেছে। তারা হলেন- মেজর মাহফুজ ও ক্যাপ্টেন শামীম।

তারা রাঙমাটি সেনা রিজিয়নে কর্মরত ছিলেন। বাকীদের নাম পরিচয় এখনো জানা যায়নি।

এ ছাড়া,টানা বর্ষণে রাঙামাটিতে বিভিন্ন স্থানে ১৪ জন প্রাণ হারিয়েছেন। এর মধ্যে কাপ্তাই উপজেলায় তিনজন ও কাউখালী উপজেলার ঘাগড়া ইউনিয়নে একজন পাহাড় ধসে মারা গেছেন। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

রাঙামাটি সদর হাসপাতালের সিভিল সার্জন ডা. শহীদ তালুকদার এ তথ্য জানিয়েছেন। রাঙামাটিতে সোমবার থেকে শুরু হওয়া বর্ষণে পাহাড়ের মাটি নরম হয়ে ধসে পড়ে। ধসে পড়া মাটির নিচে এখনও অনেকে চাপা পড়ে আছেন। তাদের উদ্ধারে অভিযান চালাচ্ছে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা। তবে বৃষ্টি কারণে উদ্ধার কাজ চালাতে তাদের বেগ পেতে হচ্ছে।

এদিকে, টানা বর্ষণে বান্দরবানের কালাঘাটায় তিনটি স্থানে পাহাড় ধসে পড়েছে। এতে তিন শিশুসহ ৭ জন প্রাণ হারিয়েছে। নিখোঁজ রয়েছেন আরও ২ জন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন কমপক্ষে ১৫ জন। সোমবার রাত ৩টার দিকে প্রবল বর্ষণের সময় কালাঘাটার কবরস্থানের পাশে, জেলেপাড়া ও লেমুঝিরি আগাপাড়া এলাকায় পাহাড় ধসে হতাহতের ঘটনা ঘটে।

কালাঘাটের কবরস্থানের পাশে পাহাড় ধসে রেবা ত্রিপুরা (১৮) নামের এক শিক্ষার্থী মাটি চাপা পড়ে ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। জেলেপাড়ায় পাহাড় ধসে মাটি চাপা পড়েন মা-মেয়ে। তারা হলেন, কামুরননাহার ও সুফিয়া। তাদের উদ্ধারের চেষ্টা চালাচ্ছে দমকল বাহিনী। লেমুঝিরি আগাপাড়া এলাকায় পাহাড় ধসে এক পরিবারের তিনটি শিশু প্রাণ হারিয়েছে। তারা হলো শুভ বড়ুয়া (৮), মিঠু বড়ুয়া (৬), লতা বড়ুয়া (৫)।

এছাড়া কুহালং ইউনিয়নের পূর্ব ধোপাছড়ি এলাকার সম্বুনিয়া পাড়ায় পাহাড় ধসে একই পরিবারের তিনজন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও দুজন। মঙ্গলবার সকালে এ ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন, মংকাউ খেয়াং (৫৫) মেম্রাউ খেয়াং (১৩) ও ক্যসা খিয়াং (৭)। এসময় চাইহ্লাউ (৩৫) ও সানু খেয়াং (১৮) নামে দুজন আহত হয়েছেন।

বান্দরবান সিভিল সার্জন বলেন, জেলার দুর্গম এলাকায় অনেক জায়গায় পাহাড় ধসের ঘটনা ঘটেছে। মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে। এদিকে, চট্টগ্রামে চন্দনাইশ ও রাঙ্গুনিয়া উপজেলার ধোপাছড়ি ইউনিয়নে পাহাড় ধসে একটি শিশুসহ ১২ জন নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার ভোরে এ ঘটনা ঘটে।