নোয়াখালীতে যৌতুক না দেয়ায় স্ত্রীকে পিটিয়ে হত্যা

0

জিসাফো ডেস্কঃ নোয়াখালীর সোনাইমুড়ী উপজেলার চাষীরহাট ইউনিয়নের পোরকরা গ্রামের দুলালের নতুন বাড়ির মালেক মাস্টার এর নাতি জাবেদ তার বৌকে পিটিয়ে মেরে ফেলেছে। হতভাগ্য গৃহবধুর লাশ সোনাইমুড়ী থানা হেফাজতে রয়েছে। প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় মামলা না নিয়ে ঘটনা ধামাচাপা দেওয়ার অশুভ চক্রান্ত চলছে।
হতভাগ্য পিংকি আক্তার পপি (১৭)র বাড়ী একই ইউনিয়নের জাহানাবাদ গ্রামের মনু ড্রাইভারের বাড়ি, সে ছকিদার সিরাজুল ইসলামের মেয়ে।মেয়েটি খুবই অসহায় পরিবারের মেয়ে, তার বাবাও বেঁচে নেই। মামলা করা বা দায়িত্ব নেওয়ার মতও কেউ নেই। তাই, সামাজিক দায়িত্বশীল ও সচেতন ব্যক্তিরা এগিয়ে না এলে অসহায় এ গৃহবধু হত্যার বিচার না হওয়ার আশংকা রয়েছে। অবিলম্বে হত্যা মামলা দায়ের করে এই হত্যাকারীকে আইনের আওতায় আনার ব্যবস্থা করা হোক।জানা যায় হত্যার বিষয়টি স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতাগন ধামা চাপা দিতে চেষ্টা করছে।

নিহতের ছোট ভাই মো. ইউছুপ অভিযোগ করে বলেন, গত ছয় মাস পূর্বে তার বড় বোন পিংকি’র সাথে জাবেদের প্রেমের সম্পর্কের সূত্র ধরে তাদের বিয়ে হয়। বিয়ের পরে পপি জানতে পারে তার স্বামী জাবেদ এর আগেও আরো দুইটি বিয়ে করেছিল। এনিয়ে গত কয়েকদিন তাদের মধ্যে বিরোধ চলে আসছিল। এর জের ধরে সোমবার দুপুরের পর জাকেদ মোবাইল ফোনের মাধ্যমে বাড়ী থেকে পিংকিকে বিদ্যালয়ের পিছনের একটি পরিত্যাক্ত বাগানে ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে পিংকিকে এলোপাতাড়ি পিটিয়ে জখম করে জাকেদ। এতে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণ হয় পিংকির। এসময় পিংকির আত্মচিৎকারে স্থানীয়রা এগিয়ে এসে জাবেদকে আটক করে এবং পিংকিকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

সোনাইমুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইসমাঈল মিঞা জানান, নিহতের মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিকভাবে নিহতের শরীরের কোন আঘাতের চিহৃ পাওয়া যায়নি। ময়না তদন্ত শেষে মৃত্যুর কারণ জানা যাবে। হত্যাকারী জাবেদ