দোকান বরাদ্দে অনিয়ম সাবেক মেয়র খোকাসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিটের সিদ্ধান্ত

0

ঢাকা: বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও অবিভক্ত ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র সাদেক হোসেন খোকাসহ সাতজনের বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র (চার্জশিট) দাখিলের সিদ্ধান্ত নিয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

সোমবার কমিশন এ চার্জশিটের অনুমোদন দেয়।

অনুমোদনের বিষয়টি দুদকের দায়িত্বশীল সূত্র নিশ্চিত করে জানায়, মামলার বিচারিক কার্যক্রমের জন্য শিগগিরই এ চার্জশিট আদালতে পেশ করা হবে।

খোকাসহ অপর যে সাতজনের বিরুদ্ধে মামলার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে, তারা হলেন- ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের (ডিএসসিসি) সাবেক সম্পত্তি কর্মকর্তা মহসিন উদ্দিন মোড়ল, অবসরপ্রাপ্ত সম্পত্তি কর্মকর্তা সাহাবুদ্দিন সাবু, সম্পত্তি বিভাগের কানুনগো মোহাম্মদ আলী, সার্ভেয়ার মুহাম্মদ বাচ্চু মিয়া, ফারুক হোসেন এবং মোতালেব হোসেন।

অনুমোদিত চার্জশিটে তাদের বিরুদ্ধে বঙ্গবাজার ও ঢাকা ট্রেড সেন্টারের কারপার্কিংয়ের স্থানে এবং খোলা জায়গায় দোকান নির্মাণ ও বরাদ্দে অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ আনা হয়েছে।

একই অভিযোগে গত বছরের ২৪ আগস্ট খোকাসহ মোট আটজনের বিরুদ্ধে দুদক মামলা দায়ের করেছিল। তদন্তে মামলার আট আসামির মধ্যে ডিএসসিসির সাবেক প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা মশিয়ার রহমানকে চার্জশিট থেকে অব্যাহতি দেয় দুদক।

অর্থাৎ মামলার এক আসামিক দায়মুক্তি দিয়ে সাতজনের বিরুদ্ধে দুদক চার্জশিটের অনুমোদন দেয়।

দুদকের সহকারী পরিচালক শেখ আবদুস সালাম এ অভিযোগের তদন্ত করেছেন। এ তদন্তকারী কর্মকর্তার প্রতিবেদনেই ডিএসসিসির সাবেক প্রধান সম্পত্তি কর্মকর্তা মশিয়ার রহমানকে অব্যাহতি দিয়ে খোকাসহ সাতজনের বিরুদ্ধে চার্জশিটের সুপারিশ করা হয়। প্রতিবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে কমিশন সাতজনের বিরুদ্ধে চার্জশিটের অনুমোদন দেয়।

দুদক সূত্র জানায়, অভিযুক্তরা ডিসিসি’র (অবিভক্ত) নীতিমালা লঙ্ঘন করে স্থায়ী মার্কেট দুটির কারপার্কিং ও খোলা জায়গায় দোকান নির্মাণ করেন ও অস্থায়ীভাবে বরাদ্দ দেন।

অভিযুক্তরা পরস্পরের যোগসাজশে জালিয়াতি করে ৪৯৩টি দোকান বিভিন্নজনের কাছে প্রতি বর্গফুট ১৫ টাকা হারে মাসিক ভিত্তিতে বরাদ্দ দিয়েছেন। ডিসিসি’র এস্টেট বিভাগের ২৫২৫ নম্বর নথিতে নোট শিট পরিবর্তন করে আগের সিদ্ধান্ত বাতিল করে দুটি মার্কেটের মোট ৪৯৩টি দোকান বরাদ্দ দেন।