সাম্প্রতিক হত্যাকাণ্ডে আ.লীগের লোক জড়িত

0

জিসাফো ডেস্কঃ এখন আর দেশের কোনো মানুষই  নিরাপদ নয় বলে উল্লেখ করে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন, সব হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে আওয়ামী লীগ জড়িত। তাই ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়েছে প্রকৃত খুনিরা।

শুভ বুদ্ধপূর্ণিমা উপলক্ষে শনিবার রাজধানীর গুলশান কার্যালয়ে বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের লোকজনের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে দেওয়া বক্তব্যে এসব কথা বলেন খালেদা জিয়া।
অনুষ্ঠানের শুরুতেই বিএনপির চেয়ারপারসনকে শুভেচ্ছা জানান বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের নেতারা। বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের প্রতি শুভেচ্ছা জানিয়ে বেগম জিয়া বলেন, দেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করছে আওয়ামী লীগ।এ সরকারের আমলে কোনো সম্প্রদায়ের মানুষই নিরাপদ নয় উল্লেখ করে বিএনপির চেয়ারপারসন বলেন, শুধু সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নয়, ব্যাংক লুটপাট, রিজার্ভ চুরি, বিদেশে অর্থপাচার, গুম-খুন আর দুঃশাসনের মাধ্যমে দেশকে ধ্বংসের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে গেছে সরকার।
খালেদা জিয়া বলেন, ‘এখন পর্যন্ত যত লোক হত্যা হয়েছে, একটাও কি ধরা পড়েছে? তার পেছনের কারণটা হলো, যে এরা সব তাদের দলীয় লোকজন। আওয়ামী লীগের যারা আছে, তাদের মধ্যেও হয়তো ভালো অনেকে আছে, তাদেরও বলতে হবে যে ভাই আসেন, আমরা তো বাংলাদেশি, যুদ্ধ করলাম, দেশটাকে স্বাধীন করলাম, এখন কি দেশটাকে ধ্বংস করব? আসেন, আপনাদের যারা এসব করতে চায়, তাদের সঙ্গে না থেকে আসুন আমরা যারা দেশটাকে ভালোবাসি, সকলে আমরা একসঙ্গে হয়ে, ঐক্যবদ্ধ হয়ে দেশটাকে গড়ার জন্য আমরা কাজ করি, এগিয়ে নিয়ে যাই।’

খালেদা জিয়া বলেন, সাম্প্রতিক ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন প্রমাণ করে এই সরকারের অধীনে কোনো নির্বাচনই সুষ্ঠু হওয়া সম্ভব নয়।বিএনপি চেয়ারপারসন আর বলেন, ‘এই দেশে কোনো নির্বাচনের পরিবেশ আছে? বা নির্বাচন হয়েছে এটাকে নির্বাচন হওয়া বলবেন? এখন ওরা যেমন সবার সম্পত্তি দখল করছে, সম্পদের মালিক হচ্ছে। সকলের ভোটের অধিকার কেড়ে নিয়েও একলা থাকবে শুধু। আর কাউকে থাকতে দেবে না। কোনো দল থাকবে না, একলা থাকবে শুধু। এভাবেই তারা চলছে।’
ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে সবাইকে জনগণের কাছে বর্তমান সরকারের কর্মকাণ্ড তুলে ধরার আহ্বান জানান বিএনপির চেয়ারপারসন। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ নয়, বিএনপিই হচ্ছে প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা এবং দেশপ্রেমিক দল।
খালেদা জিয়া বলেন, ‘মুক্তিযুদ্ধের সময় তাদের কী ভূমিকা ছিল? সেটাও তো নয়। তারা আবার রাজাকার বলে? মুক্তিযুদ্ধের সময় তো তারা স্বাধীনতার ঘোষণা দিতে সাহস পাই নাই। স্বাধীনতা ঘোষণা করেছে জিয়াউর রহমান। যুদ্ধ না করলে যোদ্ধা হয় নাকি? ফলে মুক্তিযোদ্ধা তারা নয়, মুক্তিযোদ্ধার দল হলো বিএনপি।’

ঘূর্ণিঝড় রোয়ানুতে হতাহতদের প্রতি শোক ও সমবেদনা জানানোর পাশাপাশি ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়াতে সবার প্রতি আহ্বান জানান বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

বিএনপির সহধর্ম বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট দীপেন দেওয়ানের সভাপতিত্বে বক্তব্য দেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, সহ-ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডভোকেট দীপেন দেওয়ান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. সুকোমল বড়ুয়া।উপস্থিত ছিলেন- বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা রুহুল আলম চৌধুরী, কেন্দ্রীয় নেতা খন্দকার গোলাম আকবর, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাসুদ আহমেদ তালুকদার, সুমঙ্গল ভিক্ষু, সাচিং ভ্র জেরী, দয়ানন্দ ভিক্ষু, শান্তিরক্ষিত থের, সুশীল বড়ুয়া, চন্দ্রগুপ্ত বড়ুয়া, প্রবীণচন্দ্র চাকমা, সনত তালুকদার প্রমুখ।