দেশে আইনের অনুশাসন বলতে লেশমাত্র কিছুই করতে পারে না : দুদু

0

জিসাফো ডেস্কঃ দেশে বর্তমানে গণতন্ত্র ও আইনের শাসনের লেশমাত্র নেই বলে মন্তব্য করেছে বিএনপি। দলের নেতাকর্মীদেরকে তথাকথিত বন্দুকযুদ্ধের নামে নৃশংসভাবে হত্যা করছে বলে দলটির অভিযোগ। গতকাল শনিবার ভোরে সাভার পৌরযুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহ আলম নয়নকে হত্যা তারাই প্রমাণ বলে বিএনপি মনে করে।

আজ রোববার এক সংবাদ সম্মেলনে দলের ভাইস চেয়ারম্যান শামসুজ্জামান দুদু এসব বলেন। এ ছাড়া প্রধানমন্ত্রী আজকের সংবাদ সম্মেলন থেকে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে আগামী জাতীয় নির্বাচনের ঘোষণা দিবেন বলে প্রত্যাশা করেন তিনি।

নয়া পল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এই সংবাদ সম্মেললে বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাজী আসাদুজ্জামান, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক মাহবুবের রহমান শামীম, বিলকিস জাহান শিরিন, কেন্দ্রীয় নেতা অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ, ঢাকা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক খন্দকার আশফাকুর রহমান, মুনির হোসেন, আমিনুল ইসলাম যুবদলের সাংগঠনিক সম্পাদক আ ক ম মোজাম্মেল হক প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

শামসুজ্জামান দুদু সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, গণতন্ত্র ও নির্বাচনে বিশ্বাসী যেকোনো রাজনৈতিক দল একাধিকবার ক্ষমতায় থাকার প্রত্যাশা করতেই পারে। যারা দাবি করে তারা অনেক উন্নয়ন করেছে ও দেশকে সমৃদ্ধ করেছে। প্রধানমন্ত্রী দেশে বিদেশে অনেক জায়গায় অনেক সমর্থন পেয়েছে বলে দাবি করেন। এই কথাগুলো যদি সত্য হয় তাহলে তারা জনগণের মাঝে একটি ভীত রচনা করতে পেরেছে বলে ধরে নেয়া যায়। তাহলে সকল দলের অংশগ্রহণে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে একটি গ্রহণযোগ্য জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠানের পরিবেশ তৈরি করতে সমস্যা কোথায়? নিরপেক্ষ এবং সব দলের অংশগ্রহণের ব্যবস্থাতো আগে ছিল। এই ব্যবস্থার জন্য বিএনপির মতো আওয়ামী লীগও একসময় আন্দোলন সংগ্রাম করেছে। সে জন্য একটার্ম কেনো জনগণ চাইলে তারা একাধিকবার ক্ষমতায় থাকতেই পারে। কিন্তু তারা যে ব্যবস্থা ও ভঙ্গিতে তারা ক্ষমতায় আছে তা যথাযথ নয় বলে জনগণ মনে করে। বিএনপিও মনে করে এই পথটা ঠিক না।

প্রধানমন্ত্রীর সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির প্রত্যাশা নিয়ে দুদু বলেন, প্রধানমন্ত্রী আগামী নির্বাচনের প্রস্তুতি নেয়ার জন্য তার দল ও দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। এই নির্বাচন দল নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে হবে এবং তিনি তার উদ্যোগ নেবে ও এই ঘোষণাটা তিনি দেবেন এটা আমরা প্রত্যাশা করি।

এক প্রশ্নের উত্তরে দুদু বলেন, গণতন্ত্র মানেই আলোচনা, সমঝোতা ও আপোস। আমরা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করি বলেই এই কথাগুলো বলছি। আমরা আলোচনার আহ্বান জানিয়ে যাবো, যতক্ষণ পর্যন্ত আওয়ামী লীগ আলোচনায় সাড়া না দেয়। যাতে ক্ষমতাসীনদেরকে দিয়ে নিরপক্ষে নির্বাচনের পরিবেশ তৈরির ব্যবস্থাটা করানো যায় সে ব্যাপারে জনগণকে সাথে নিয়ে এগিয়ে যাবো