দেশবাসীসহ বিশ্বের সকল মুসলিমদের বেগম জিয়ার ঈদ শুভেচ্ছা

0

জিসাফো ডেস্কঃ দেশে এক ভয়ঙ্কর নৈরাজ্য চলছে মন্তব্য করে বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া বলেছেন, ‘ত্যাগের মহিমায় মহিমান্বিত প্রতি বছর ঈদুল আজহা ফিরে আসে। স্বার্থপরতা পরিহার করে মানবতার কল্যাণে নিজেকে উৎসর্গ করা কোরবানির প্রধান শিক্ষা। হিংসা-বিদ্বেষ, লোভ-ক্রোধকে পরিহার করে সমাজে শান্তি ও সম্প্রীতি প্রতিষ্ঠায় আত্মনিবেদিত হওয়া আমাদের কর্তব্য। কোরবানির যে মূল শিক্ষা তা ব্যক্তি জীবনে প্রতিফলিত করে মানবকল্যাণে ব্রতী হওয়ার মাধ্যমে মহান আল্লাহ রাব্বুল আল আমিনের সন্তুষ্টি ও নৈকট্য লাভ সম্ভব। বিশ্বাসী হিসেবে সে চেষ্টায় নিমগ্ন থাকা প্রতিটি মুসলমানের কর্তব্য।’

তিনি বলেন, ‘ঈদের প্রাক্কালে বেশ কয়েকটি গুমের ঘটনায় আমি গভীরভাবে উদ্বিগ্ন। দেশে এখন মানুষের জান, সহায়-সম্পদের কোনও নিরাপত্তা নেই। তাই দেশের বর্তমান অবস্থায় সকলের পক্ষে ঈদের আনন্দ যথাযথভারে উপভোগ করা সম্ভব হবে না।’

বৃহস্পতিবার (৩১ আগস্ট) দলের সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী স্বাক্ষরিত এক বাণীতে খালেদা জিয়া এসব কথা বলেন।

বাণীতে খালেদা জিয়া বলেন, ‘ আমি বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বের পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে মুসলমানদের জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও মোবারকবাদ। ঈদ মোবারক।’

তিনি বলেন, ‘এদিকে চাল, ডাল, লবন, পেঁয়াজ, মরিচসহ দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন ঊর্ধ্বগতি দরিদ্র ও কম আয়ের মানুষকে চরম দুর্ভোগের মুখে ঠেলে দিয়েছে। মধ্যবিত্ত ও নিম্নবিত্তের মানুষ আরও বিপন্ন হয়ে পড়বে। পানি, জ্বালানি তেল, গ্যাস, বিদ্যুতের তীব্র সংকট, সড়ক ও মহাসড়কের বেহাল অবস্থা জনজীবনে দুর্বিসহ অবস্থার সৃষ্টি করেছে।’

খালেদা জিয়া বলেন, ‘একের পর এক হাওরে বন্যা, পাহাড় ধস ও সম্প্রতি উত্তরাঞ্চলসহ দেশের ২৭টি জেলায় ভয়াবহ বন্যার মতো প্রাকৃতিক দুর্যোগে অনেকেই স্বজন হারিয়েছে, ঘরবাড়ি, জোত-জমিসহ সহায় সম্পদ বানের পানিতে ভেসে গেছে। এখনও ভেসে যাওয়া বসতবাড়ির শূন্য ভিটায় ঠাঁই নিতে পারেনি হাজারো মানুষ।’

তিনি বলেন, ‘আমি বিএনপি নেতাকর্মীসহ দেশের সকল বিত্তবান ও সামর্থবান ব্যক্তিদের আহ্বান জানাই- প্রাকৃতিক দুর্যোগে দুর্গত অসহায় মানুষের দিকে সাহায্য ও সহমর্মিতার হাত প্রসারিত করার জন্য।’

বাণীতে তিনি আরও বলেন, ‘ঈদের আনন্দের দিনে কেউ যাতে অভুক্ত না থাকে সেদিকে আমাদের সবাইকে খেয়াল রাখতে হবে। ঈদের আয়োজনে উপদ্রুত অসহায় মানুষ যেন অংশগ্রহণ করতে পারে সেই উদ্যোগ গ্রহণের জন্য সবার প্রতি আহবান জানাচ্ছি। ঈদের আনন্দকে ভাগ করে নিতে হবে এক কাতারে মিলে।’

বেগম জিয়া বলেন, ‘ঈদুল আজহা সবার জীবনে বয়ে আনুক সুখ-শান্তি ও সমৃদ্ধি, সমাজে সৃষ্টি হোক সম্প্রীতি ও সৌহার্দ্যেরে মেলবন্ধন, মহান আল্লাহ তায়ালার দরবারে এই প্রার্থনা জানাই।’