দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার হাঁটুর চিকিৎসা চলছে

0

কে এম সবুজঃলন্ডন সফররত বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার চোখের চিকিৎসা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হলেও তার হাঁটুর চিকিৎসা এখনও শেষ হয়নি। ফলে কবে নাগাদ দেশে ফিরবেন, এ নিয়ে এখনো কিছু জানা যায়নি। বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, চেয়ারপারসনের চোখের অপারেশন সফল হয়েছে। তার হাঁটুর চিকিৎসা এখনও চলছে। তিনি এখনো ভালো করে হাঁটতে  পারছেন না। চিকিৎসা শেষ হলেই তার দেশে ফেরা হবে।কয়েকদিন আগে বিএনপির স্থায়ী কমিটির অন্য এক সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেছিলেন, সেপ্টেম্বর মাসের মাঝামাঝিতে দেশে ফিরতে পারেন
বিএনপি চেয়ারপারসন।এ ব্যাপারে খালেদা জিয়ার মিডিয়া উইং কর্মকর্তা শায়রুল কবির খান বলেন,অপারেশনের পর ম্যাডামের চোখের অবস্থা স্থিতিশীল। তবে তার হাঁটুর চিকিৎসা চলছে।৮ আগস্ট বিকালে লন্ডনের মরফিল্ড চক্ষু হাসপাতালে খালেদা জিয়ার ডান চোখের সফল অস্ত্রোপচার হয়। তার চিকিৎসা কার্যক্রম সরাসরি তত্ত্বাবধান করছেন লন্ডনে অবস্থানরত তার বড় ছেলে তারেক রহমান। আর পুত্রবধূ ডা. জোবায়দা রহমান ও শর্মিলা রহমানও সাবেক এই প্রধানমন্ত্রীকে সার্বক্ষণিক দেখভাল করছেন। এদিকে, ১৬ জুলাই লন্ডন গেলেও দলের নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছেন খালেদা জিয়া। ১ সেপ্টেম্বর ঈদুল ফিতরের দিন দলের সিনিয়র নেতাদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেন তিনি। ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ঈদের দিন ম্যাডামের সঙ্গে কথা হয়েছে। ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় হয়েছে।আরও অনেককেই তিনি ফোন করে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। তবে রাজনৈতিক কোনও বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়নি বলে দাবি করেন মোশাররফ হোসেন। আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর খালেদা জিয়ার লন্ডন সফরের দুই মাস পূর্ণ হবে। তার লন্ডন সফরে যাওয়ার আগে থেকেই দলের অভ্যন্তরে আলোচনা ছিল, ঈদের পরই দেশে ফিরবেন দলের চেয়ারপারসন। এরই মধ্যে গণমাধ্যমে তার দেশে ফেরা নিয়ে বিভিন্ন প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়ায় নেতাকর্মীদের মধ্যে নানা ধরনের গুঞ্জন তৈরি হয়েছে।ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে নানা সময়ে সংশয় প্রকাশ করা হয়েছে। ১৭জুলাই মন্ত্রী পরিষদের বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছিলেন, দেখেন উনি(খালেদা জিয়া) ফিরে আসেন কিনা? যদিও বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সরকারের দায়িত্বশীলদের এসব মন্তব্যের সমালোচনা করেছেন।