দুই গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ১

0

নড়াইল: জেলার লোহাগড়া উপজেলার ঘাঘা গ্রামে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ইকবাল সমাদ্দার (২৫) নামে এক জন নিহত ও ১০ জন আহত হয়েছে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ৬৫ রাউন্ড গুলি বর্ষণ করেছে।

নিহত ইকবাল কোটাকোল গ্রামের রুপাই সমাদ্দারের ছেলে। আহতদের লোহাগড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, নড়াইলের লোহাগড়া উপজেলার কোটাকোল ইউনিয়নের ঘাঘায় এলাকার আধিপথ্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে বর্তমান চেয়ারম্যান খান জাহাঙ্গীর আলমের সমর্থকদের সাথে সাবেক চেয়ারম্যান হেমায়েত হোসেন হিমুর সমর্থকদের সাথে বিরোধ চলে আসছিল। এ ঘটনার জের ধরে সোমবার সকালে উভয়পক্ষ সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এতে হিমুর সমর্থক ইকবাল সমাদ্দার নামে একজন নিহত হয়। এসময় উভয় পক্ষে কমপক্ষে ১০ জন নিহত হয়।

হেমায়েত হোসেন হিমু অভিযোগ করেন, প্রতিপক্ষ খান জাহাঙ্গীর আলমের লোকজন তাদের ওপর শর্টগানের গুলি ছোড়ে। এ গুলিতে তার লোকজন হতাহত হন।

এ অভিযোগ অস্বীকার করেছেন জাহাঙ্গীর আলম।

পুলিশ সুপার সরদার রকিবুল ইসলাম সংঘর্ষে ইকবাল নামে একজন নিহত বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৬০ রাউন্ড শর্টগানের গুলি এবং ৫ রাউন্ড টিয়ারসেল গুলি ছোড়া হয়েছে।  বর্তমানে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।