তরিকুল ইসলামকে মেরে ফেলার চক্রান্তে সরকার – নজরুল ইসলাম খান

0

অনিক খানঃ দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলামকে বিনা চিকিৎসায় ক্ষমতাসীনরা মেরে ফেলার ষড়যন্ত্র করছে বলে অভিযোগ করেছে বিএনপি।মঙ্গলবার দুপুরে রাজধানী নয়াপল্টন দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান।

নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে তরিকুল ইসলাম কিডনি ও হৃদরোগের চিকিৎসা করাচ্ছেন। তার প্রথমবার কিডনি ও দ্বিতীয়বার হার্টের অপারেশন করাতে হবে। এ জন্য পাসপোর্ট করাতে ৫ অক্টোবর পাসপোর্ট অফিসে গিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু তাকে কোন পাসপোর্ট দেয়া হয়নি।’তরিকুল ইসলামকে মুত্যুর মুখে ঠেলে দিতেই সরকার তাকে পাসপোর্ট দেয়নি বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

নজরুল ইসলাম বলেন, ‘যশোরে তরিকুল ইসলামসহ বিএনপির কয়েকজন নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। এজাহারে বলা হয়েছে, তরিকুল ইসলামসহ বিএনপির নেতাকর্মীরা প্রশাসনসহ সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে নাশকতার পরিকল্পনা করেছেন।’বিএনপির এ নেতা বলেন, ‘সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে এই মামলা করা হয়েছে। গল্পের মাধ্যমের সরকার তাদের বিরুদ্ধে এ মামলা করেছে। এর বাইরে কিছু নয়।’কগণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় যখন দলের পুনর্গঠনের কাজ শুরু করছে ঠিক তখনই সরকার বিএনপির নেতাকর্মীদের মিথ্যা মামলায় গ্রেপ্তার করছে বলে অভিযোগ করেন তিনি।

নজরুল ইসলাম বলেন, ‘বিএনপির অনেক শীর্ষস্থানীয় নেতা কারাগারে বন্দি আছেন। তাদের ছাড়া দলের পুনর্গঠন সম্ভব নয়। আর বিএনপি যাতে দলকে সুসংগঠিত করতে না পারে সেই কারণে এখনও নেতাদের  গ্রেপ্তার করা হচ্ছে।’বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘খালেদা জিয়ার চিকিৎসা চলছে।’

ঢাকা মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব হাবিব-উন-নবী-খান সোহেলের ছোট ভাই রাশেদুল নবী বিপ্লবসহ বিএনপির আরো কিছু নেতাকে গ্রেপ্তারের তিন পরও জনসম্মুখে হাজির না করাকে ‘রহস্যজনক’ বলে মন্তব্য করেন তিনি।নজরুল ইসলাম বলেন, ‘বিপ্লবকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে কি না সেই বিষয়ে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা কিছু বলছেন না। এতে আমরা আশঙ্কা প্রকাশ করছি, তাদেরকেও অপহরণ ও গুম করা হতে পারে।’

তিনি অবিলম্বে তাদেরকে জনসম্মুখে হাজির করে মুক্তির দাবি জানান। একই সঙ্গে মিথ্যা মামলায় গ্রেপ্তার বিএনপির সব নেতাকর্মীর মুক্তির দাবি জানান।দুই বিদেশি নাগরিককে হত্যার প্রসঙ্গ টেনে বিএনপির এ নেতা বলেন, ‘বিদেশি নাগরিকদের হত্যার বিষয়ে জনগণের দৃষ্টি ভিন্ন খাতে নেয়ার জন্যই বিপ্লবকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।’বিদেশি নাগরিকদের হত্যার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেন, ‘কোন তদন্ত ছাড়াই প্রধানমন্ত্রী যেভাবে বিএনপিকে দায়ী করেছেন এতে মনে হয় দেশে কোন গোয়েন্দা সংস্থা ও বিচারবিভাগের প্রয়োজন হবে না। আমরা চাই সুষ্ঠু তদন্তের মাধ্যমে দোষীদের খুঁজে বের করা হোক।’

বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সালাম আজাদ, সহ-দপ্তর সম্পাদক শামীমুর রহমান শামীম এ সময় উপস্থিত ছিলেন।