তনু হত্যার বিচার না হলে হুমকিতে পড়বে নারীশিক্ষা

0

ঢাকা : কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের মেধাবী শিক্ষার্থী ও সংস্কৃতিকর্মী সোহাগী জাহান তনু হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদ জানানো আমাদের সবার নৈতিক দায়িত্ব। কারণ, তনুর জায়গায় আমাদেরও কোনো আপনজন থাকতে পারতো। তাই এ ঘটনার সুষ্ঠু বিচার না হলে অদূর ভবিষ্যতে দেশের নারীশিক্ষা হুমকির সম্মুখীন হয়ে পড়বে।

বৃহস্পতিবার (২৪ মার্চ) বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বিভিন্ন সংগঠনের ব্যানারে আয়োজিত মানববন্ধনে নারীনেত্রীরা এসব কথা বলনে। এসময় তারা তনুর হত্যাকারীদরে অবিলম্বে গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানান।

তনুর বিকৃত ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশ পাওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন জাতীয় যুব জোটের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক রোকসানা খাতুন। তিনি বলেন, ‘একজন নারী যখন নির্যাতনের শিকার হয় তখন তার ছবি তোলার ক্ষেত্রে আমাদের অনেক সচেতন হওয়া দরকার।’ এসময় এ নারীনেত্রী নারীদের আপত্তিকর ছবি প্রকাশ না করার জন্য গণমাধ্যম ও সাধারণ মানুষের প্রতি আহ্বান জানান।

রোকসানা খাতুন বলেন, ‘এ ধরনের অপরাধীরা শুধু সোহাগী জাহান তনুকে শারীরিক নির্যাতন করে হত্যা করে করেনি, এরা হত্যা করেছে আমাদের বিবেক ও ১৬ কোটি বাঙ্গালির সম্ভ্রম। তাই তনু হত্যাকাণ্ডের সকল দায়ভার আমাদের। এ দায় যেমন আমরা এড়াতে পারি না তেমনি সরকারও এড়াতে পারবে না।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা বিশ্বাস করি, হত্যাকারী যতই শক্তিশালী হোক না কেন, রাষ্ট্র চাইলে হত্যাকারীদরে গ্রেপ্তার করে শাস্তির আওতায় নিয়ে আসতে পারে। নইলে আমাদের বোনেরা নিরাপদে বিদ্যালয়ে যেতে পারবে না। অপরাধীরা আরও ভয়ঙ্কর হয়ে ওঠবে।’

মানববন্ধনে নারী জোটের আহ্বায়ক আফরোজা হক রীনা বলেন, ‘দিন দিন নারীর ওপর নির্যাতন বেড়েই চলেছে। এসব ঘটনা খুবই অমানবিক। নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে সম্মলিতিভাবে প্রতিবাদ ও প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।’

এসময় মানববন্ধনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- নারী জোটের মহানগর আহ্বায়ক সৈয়দা শামিমা হ্যাপী, জাতীয় যুব জোটের মহিলা বিষয়ক সম্পাদক রোকসানা খাতুন, কর্মজীবী নারী সহ-সভাপতি উম্মে হাসান ঝলমল, ভারপ্রাপ্ত নির্বাহী পরিচালক রাহেনা রব্বানী, কন্যাশশিু অ্যাডভোকেসি ফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য লায়লা দিপু এবং বিকশিত নারী নেটওর্য়াকের নেত্রী ক্যামেলিয়া চৌধুরী প্রমুখ।