জাতিসংঘের সামনে মুজাহিদ ও সালাউদ্দিনের মৃত্যুদণ্ডের প্রতিবাদ ও গায়েবানা জানাযা অনুষ্ঠিত

0

জিসাফো ডেস্কঃ জামায়াতে ইসলামীর সেত্রেুটারী জেনারেল আলী আহসান মুজাহিদ ও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাহউদ্দিন কাদের চৌধুরীকে মানবতাবিরোধী অপরাধ বিচারের নামে পরিকল্পিতভাকে হত্যা করেছে সরকার। রাজনৈতিক প্রতিহিংসার কারণে বিচারিক হত্যাকান্ডের শিকার হয়েছেন এই দুই নেতা। রবিবার দুপুরে কোয়ালিশন অব বাংলাদেশী আমেরিকান এসোসিয়েশন কোবা) এর আয়োজনে নিউ ইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দপ্তরের সামনে বিক্ষোভ ও গায়েবানা জানাজা-পূর্ব সমাবেশে এসব কথা বলেন বক্তারা। প্রতিবেশী একটি রাষ্ট্রের এজেন্ডা বাস্তবায়নে সরকার মরিয়া হয়ে উঠেছে বলে মনে করেন সংগঠনটির নেতারা।

বাংলাদেশী আমেরিকান প্রগ্রেসিভ ফোরামের সাধারণ সম্পাদক ও ক্বোবার সদস্য মাহবুবুর রহমানের পরিচালনায় সমাবেশে বক্তব্য দেন হিউম্যান রাইটস ডেভেলপমেন্ট ফর বাংলাদেশ (এইচআরডিবি)’র প্রেসিডেন্ট মাহতাবউদ্দিন আহমেদ, মজলিস আশ শুরা অফ নিউইর্য়ক সভাপতি শায়খ আব্দুল হাফিদ, এক্সিকিউটিভ ডাইরেক্টর শায়খ আহমেদ সিডি মোবারক, শিক্ষাবিদ আবুসামীহাহ সিরাজুল ইসলাম, সাইফুল ইসলাম, বাংলাদেশী আমেরিকান প্রগ্রেসিভ ফোরামের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক নূরুল ইসলাম, চবি এলামনাই এসোসিয়েশনের সভাপতি অধ্যাপক কাজী ইসমাইল, রাইটার্স ফোরাম অফ নর্থ আমেরিকার সভাপতি আব্দুল্লাহ আল আরিফ, ক্যাবি সোসাইটির সভাপতি ডা: আব্দুল আজিজ, ত্রুীড়া সংগঠক মো: মনির হোসেন, যুক্তরাষ্ট্র ওলামা ফেডারেশনের সদস্য মাওলানা সাফায়েত হোসাইন সাফা, যুক্তরাষ্ট্র জাগপা সভাপতি এএসএম রহমত উল্যাহ ভূইয়াঁ, সাংবাদিক শহীদুল্লাহ কায়সার, কমিউনিটি লিডার আব্দুল মজিদ, বাবুল ইসলাম। সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন মুসলিম ভোটার্স ইনফরমেশন ক্লাবের প্রেসিডেন্ট নাজি আল মোর্দ্দাসির, মুসলিম কমিউনিটি নেটওর্য়াকের লিডার ডেবী আল মোদ্দাসির, কমিউনিটি এক্টিভিষ্ট ও এইচআরডিবি)’র অন্যতম সহ-সভাপতি মীর মাসুম আলী, কমিউনিটি নেতা আনোয়ারুল হক, সাইফুল আজম, আবুল কাসেম, মাওলানা ইব্রাহিম খলিল, এমদাদুল হক, শাহ মোয়াজ্জেম, মহিলা নেত্রী শাহানা মাসুমসহ আরো অনেকে।

“কোয়ালিশন অফ বাংলাদেশী আমেরিকান এসোসিয়েশন” (ক্বোবা)‘র আয়োজনে সমাবেশে বক্তারা আরো বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের যুদ্ধাপরাধ বিষয়ক এবং বাংলাদেশের শীর্ষ স্থানীয় আইনবিদগণ এ ট্রাইব্যুনাল ভেঙ্গে দিয়ে জাতিসংঘের তত্ত্বাবধানে ট্রাইব্যুনাল গঠনের দাবি জানায়েছেন। একইভাবে জাতিসংঘও এ ট্রাইব্যুনাল নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। এমন বিতর্কিত ট্টাইব্যুনাল দিয়ে সরকার একের পর এক জাতীয় ও ইসলামী আন্দোলনের নেতাদের ফাঁসি দিচ্ছে। তদন্তকারী সংস্থা ও প্রসিকিউশনের যোগসাজশে মিথ্যা কল্পকাহিনী তৈরী করে আওয়ামী সরকার বিরোধীদলীয় নেতাদের হত্যা করছে।

সমাবেশ শেষে গায়েবানা জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। তিন শতাধিক লোকের উপস্থিতিতে নামাজের ইমামতি করেন মজলিস আস শুরা অফ নিউইর্য়ক সভাপতি শায়খ আব্দুল হাফিদ।