জন্মদিনে কেক কাটতে নিষেধ করেছেন দেশনায়ক তারেক রহমান

0

জিসাফো ডেস্কঃ বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যার তারেক রহমানের ৫১তম জন্মদিনে এবার কেক কাটবেন না দলটির নেতা-কর্মীরা। যদিও প্রতিবছর নেতার জন্মদিনে ঘটা করে কেক কাটার অনুষ্ঠান করে থাকেন তারা।

সামগ্রিক রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিবেচনায় নিয়ে এ বছর কেক না কাটতে তারেক রহমান নিজেই নিষেধ করেছেন। তবে তার (তারেক রহমানের) সুস্থতা কামনায় শুক্রবার বাদ জুম্মা নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচতলায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে।

বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে এসব কথা বলেন দলটির মুখপাত্র ড. আসাদুজ্জামান রিপন।

তিনি জানান, ‘প্রতি বছর নেতা-কর্মীরা নিজের আগ্রহে তারেক রহমানের জন্মদিনে কেক কেটে থাকেন। তবে এ বছর তিনি (তারেক রহমান) নিজেই কেক কাটতে নিষেধ করেছেন। এর পরিবর্তে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের নিচতলায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হবে।’

বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও প্রাক্তন রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বড় ছেলে তারেক রহমান ১৯৬৫ সালের ২০ নভেম্বর জন্মগ্রহণ করেন। ডাক নাম পিনু। তারেক রহমান ঢাকার শাহীন স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন। তবে তিনি পড়াশোনা শেষ করতে পারেননি। ১৯৯৪ সালের ৩ ফেব্রুয়ারি বিমানবাহিনীর প্রাক্তন প্রধান রিয়ার অ্যাডমিরাল মাহবুব হোসেনের বড় মেয়ে ডা. জোবাইদার সঙ্গে বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন তারেক।

১৯৯১ সালে বগুড়ার গাবতলী থানা বিএনপির সদস্য পদ লাভের মধ্য দিয়ে রাজনীতিতে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রবেশ করেন তিনি। ১৯৯৬ সালে জেলা বিএনপির সদস্য হন। ২০০২ সালে তারেক রহমানকে দলের সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব নির্বাচিত করে বিএনপির স্থায়ী কমিটি।

বর্তমানে তারেক রহমান দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান। চারদলীয় জোট সরকার ক্ষমতায় থাকাকালে তার বিরুদ্ধে ব্যাপক দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে।

গত সেনাসমর্থিত তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় ২০০৭ সালের ৭ মার্চ তারেককে দুর্নীতি মামলায় গ্রেফতার করে পুলিশ। উচ্চ আদালত থেকে প্যারোলে জামিন পেয়ে ২০০৮ সালের ১১ সেপ্টেম্বর তিনি চিকিৎসার উদ্দেশে সপরিবারে লন্ডনে যান। লন্ডনে থাকা অবস্থায় ২০০৯ সালের ৮ ডিসেম্বর দলের জাতীয় কাউন্সিলে তাকে দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান নির্বাচিত করা হয়। তারেক রহমান চিকিৎসাধীন অবস্থায় এখনো যুক্তরাজ্যেই অবস্থান করছেন। সঙ্গে আছেন স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমান ও মেয়ে জাইমা রহমান।

এদিকে দীর্ঘদিন তারেক রহমানের জন্মদিনে পাশে থাকতে না পারলেও চিকিৎসার জন্য লন্ডনে অবস্থান করা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া এবার ছেলেকে সঙ্গে নিয়ে জন্মদিন উদযাপন করবেন।

সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি নেতাদের মধ্যে দলটির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ভাইস চেয়ারম্যার সেলিমা রহমান, বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ড. ওসমান ফারুক, নিতাই রায় চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, গোলাম আকবর খন্দকার, সহসাংগঠনিক সম্পাদক আবদুস সালাম আজাদ, সহদফতর সম্পাদক আবদুল লতিফ জনি, শামীমুর রহমান শামীম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।