জনগণের বাঁধভাঙা জোয়ারের মুখে সরকারের অস্তিত্ব থাকবে না

0

জিসাফো ডেস্কঃ পাহাড় ধ্বসে সংশ্লিষ্ট এলাকার মানববিপর্যয়ে বিপন্ন এলাকায় অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য বিএনপির প্রতিনিধি দলের গাড়িবহরে হামলাকারীদের শাস্তি না হলে জনরোসে সরকারের পাত্তা থাকবে না বলে মন্তব্য করেছেন দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন।

তিনি সরকারের প্রতি হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেছেন, এই সরকারই শেষ সরকার নয়। এভাবে গুম, খুন, হামলা চলতে থাকলে দেশের জনগণ আর বসে থাকবে না। জনগণের বাঁধভাঙা জোয়ারের মুখে সরকারের অস্তিত্ব টিকিয়ে রাখা সম্ভব হবে না। জনরোষে সরকারের অস্তিত্ব থাকবে না। তাই অনতিবিলম্বে^ বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের গাড়ি বহরে হামলাকারীদের চিহ্নিত করে অতিদ্রুত দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি।

সোমবার দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, স্থায়ী কমিটির সদস্য আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরীসহ বিএনপির নেতৃবৃন্দের উপর হামলার প্রতিবাদে এক মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন। এ মানববন্ধনের আয়োজন করে জাতীয়তাবাদী মহিলা দল।

খন্দকার মোশাররফ বলেন, গণতন্ত্র আজ সরকারের বাক্সে বন্দী। আমাদের সভা-সমাবেশ করতে দেয়া হয় না, মানুষের পাশে দাঁড়াতে দেয় না। এমনকি ইফতার পার্টি করতেও দেয়া হয় না। এভাবে চলতে থাকলে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড গঠিত হবে না। আর তা না হলে কখনো এদেশে অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হবে না।

তিনি বলেন, যেভাবে আক্রম, হামলা, গুম,খুন চালিয়ে যাচ্ছে, তার পরিণতি শুভ হবে না। আমরা প্রতাশা করি এই সব হামলা-মামলা থেকে সরকার সরে আসবে। এক দেশে দুই আইন চলতে পারে না। আমরা সভা সমাবেশ করতে পারি না। গণতন্ত্র ও মানুষের অধিকারের স্বার্থে শান্তিপূর্ন সমাধান চাই। এর জন্য আগামী নির্বাচনে লেভেল প্লেয়িং ফিল্ডের মাধ্যমে সুষ্ঠ নির্বাচন চাই।

জাতীয়তাবাদী মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদের সভাপতিত্বে মানববন্ধনে আরো উপস্থিত ছিলেন, ঢাকা মহানগর মহিলা দল উত্তরের সভাপতি পিয়ারা মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক আমিনা খাতুন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রোকেয়া বেগম তামান্না, ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক শামসুনাহার ভূইয়া, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক রোকেয়া চৌধুরী বেবীসহ বিভিন্ন থানার মহিলা দলের নেতাকর্মীরা।