ঘুরে দাড়াচ্ছে বিএনপি,কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে মির্জা ফখরুল,উচ্ছ্বোসিত নেতাকর্মী

0

জিসাফো ডেস্কঃ নেতাকর্মীদের দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা ছিল মির্জা ফখরুল ইসলামকে মহাসচিব হিসেবে পাওয়া।গতকাল দিনটা ছিল যেমন নেতাকর্মীদের জন্য আনন্দের তেমনি মির্জা ফখরুল ও রুহুল কবির রিজভীর জন্য এমনকি দলের জন্য।গতকাল সকাল ১১ টায় আসলো সেই মাহেন্দ্রক্ষণ।দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া মির্জা ফখরুলকে মহাসচিব,তৃণমূল নেতাকর্মীদের প্রাণপ্রিয় নেতা রুহুল কবির রিজভীকে সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব ও মিজানুর রহমান সিনহাকে কোষাধক্ষ হিসাবে ঘোষণা করেন।

ঘোষণার পরপরই নেতাকর্মীদের মাঝে দেখা গেছে খুশির বন্যা,প্রানোচ্ছ্বলতা।কেউ কেউ আনন্দে কেঁদেই ফেলেছেন।কেননা রাজনীতির অঙ্গনে পরিচ্ছন্ন রাজনীতিক হিসেবে মির্জা ফখরুল একজন উজ্জ্বল নক্ষত্র আর জাতীয়তাবাদী চেতনায় একজন নির্ভীক জিয়ার সৈনিক,৯০ এর রাজপথ কাঁপানো নেতা রুহুল কবির রিজভী।

উত্তরাঞ্চলের মহান এই দুই নেতাকে প্রত্যাশিত পদে ও যোগ্য আসনে পেয়ে নেতাকর্মীদের মাঝে খুশির জোয়ার বইছে।তার প্রমাণ আজকের নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়।

ভারমুক্ত হয়ে নবরুপে দায়িত্ব পেয়ে দুপুরে নয়াপল্টন কার্যালয়ে গেছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর,সিনিয়র যুগ্ম মহাসচিব এডঃ রুহুল কবীর রিজভী, সাথে রয়েছেন ভাইস চেয়ারম্যান জনাব আব্দুল্লাহ আল নোমান ও কেন্দ্রীয় অর্থ বিষয়ক সম্পাদক জনাব আবদুস সালাম।

এদিকে মহাসচিবের নয়াপল্টনে আসার খবর পেয়ে সকাল থেকেই কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে নেতাকর্মীদের ঢল নামতে থাকে।পুরো নয়াপল্টন এলাকা  স্লোগানে  স্লোগানে মুখোরিত হয়ে ওঠে।

নেতাকর্মীদের প্রাণোছ্বলতা্য মনে হচ্ছে বিএনপি আজ সত্যি ঘুরে দাঁড়াচ্ছে । যে ঘুরে দাঁড়ানোর কথা বলেছিলেন দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া,যে ঘুরে দাঁড়ানোর কথা বলেছিলেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর,রুহুল কবির রিজভী সহ দলের অনেক সিনিয়র নেতৃবৃন্দ।

আজ পল্টন এলাকা দেখে সত্যি এর বাস্তবতা পরিলক্ষিত হচ্ছে। ইনশাআল্লাহ আশা করা যায় এবার গণতন্ত্র রক্ষার যে মহান শপথ নিয়ে বিএনপির পথচলা,আমরা সেই বিএনপিকেই আবার দেখতে পাব।

আবার আমরা দেখতে পাব নব্বইয়ের এরশাদ বিরোধী আন্দোলনের মত নেতাকর্মীদের রাজপথে।ফিরে পাব আমাদের হারানো গণতন্ত্রকে।