গেন্ডারিয়ায় হিন্দুদের কথিত অভিযোগে মুসল্লিদের মারধর করে মসজিদ থেকে বের করে দিল পুলিশ

0

জিসাফো ডেস্কঃ ঢাকার গেণ্ডারিয়া কাপুরিয়া নগর এলাকায় জোহর নামাজ আদায়ের পর হিন্দুদের অভিযোগের উপর ভিত্তি করে মুসল্লিদেরকে অস্ত্রের ভয় দেখিয়ে ও মারধর করে মসজিদ থেকে বের করে দিল গেণ্ডারিয়া থানার ওসি (ভারপ্রাপ্ত) কাজী মিজানুর রহমানের নেতৃত্বে একদল পুলিশ।

pltygf

রাজধানীর গেন্ডারিয়া এলাকায় একটি মসজিদ নির্মাণকে কেন্দ্র করে এলাকাবাসীর মধ্যে সকাল থেকে উত্তেজনা বিরাজ করছে। গেন্ডারিয়ার ৪৬ নম্বর ওয়ার্ডের মতিচরণ রায় রোডের ৩১ নং হোল্ডিংএ গত শুক্রবার একটি মসজিদ নির্মাণ শুরু হয়। এরপর হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ গেন্ডারিয়া শাখার পক্ষ থেকে স্থানীয় থানায় একটি জিডি করার পর আজ রোববার দুপুরে সেখানে পুলিশ যায়। এরপর সেখান থেকে সকল মুসল্লিকে মসজিদ থেকে বের করে দেয় পুলিশ।

গেন্ডারিয়ার স্থানীয় হিন্দু ধর্মাবলম্বীরা দাবি করছেন যে স্থানে মসজিদ নির্মাণ করা হচ্ছে সেখানে একটি মন্দির ছিল। মিলব্যারাক সমাজকল্যাণ সংগঠনসহ ৫ ব্যক্তির নামে স্থানটি লিজ নেয়া হয় এবং ওই সংগঠনের পক্ষ থেকে জানানো হয়, ওই স্থানে কোনো মন্দির ছিল না। গত শুক্রবার মসজিদ নির্মাণের পাশাপাশি সেখানে নামাজ পড়া শুরু হয় এবং রোববার মসজিদটিতে জোহরের নামাজ আদায় করেছে মুসল্লিরা। কিন্তু গেন্ডারিয়া থানায় জিডি করার পর পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। নারী পুরুষ নির্বিশেষে অনেকেই মসজিদের আশে পাশে অবস্থান নিয়েছে।

গেণ্ডারিয়া কাপুরিয়া নগর এলাকায় হিন্দুদের বসবাসই তুলনামুলক বেশী। সেখানে কোন মসজিদ ছিলো না তাই এলাকার তরুন মুসলমানরা এবং পাড়ার মুরুব্বি কয়েকজন মিলে একটা মসজিদ তৈরি করছে, যা এখনও সম্পূর্ণরূপে হয়নি । শুক্রবার দিন জুম্মার নামাজও পড়েছে এলাকাবাসী ।

মসজিদের ব্যাপারে হিন্দুদের শান্তি বিনষ্ট ও নিরাপত্তার অভিযোগ এনে ও পূর্বে এখানে মন্দির ছিল এমন অভিযোগ এনে হিন্দুরা গেণ্ডারিয়া থানায় অভিযোগ করে এবং স্থানীয় সংসদ সদস্যের কাছেও অভিযোগ করে।অথচ সেখানে কখনোই মন্দির ছিলনা । সেই অভিযোগের ভিত্তিতে আজ পুলিশ এসে জোহরের নামাজের পর সকল মুসল্লিকে অস্ত্রের মুখে ভয় দেখিয়ে ও মারধর করে মসজিদ থেকে বের করে দেয় ।

ভিডিও :